সিঙ্গেল হলেও কার নামের সিঁদুর পড়েন সিঁথিতে, এতদিনে সত্য ঘটনা প্রকাশ্যে আসলো রেখার

সত্তরের দশকের অন্যতম অভিনেত্রী ভানুরেখা গণেশন বেশিরভাগ রেখা নামে সকলের কাছে পরিচিত। তার যতই বয়স হোক না কেন,সব সময় থাকবেন এভারগ্রীন। দিন যত যাচ্ছে রেখার সৌন্দর্য দিনে দিনে আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে। গতকাল ছিল এই এভারগ্রীন অভিনেত্রীর জন্মদিন।এই জন্মদিনের উপলক্ষে এক কাহিনী উঠে আসে রেখার জীবন কে কেন্দ্র করে।

রেখার মতে বয়স হলো একটা সংখ্যা এবং সেটা দিয়ে কখনই একটা মানুষের জীবনের ধাপ কে বিবেচনা করা যায় না।এই অভিনেত্রী সত্তরের দশকের নায়িকা হয়েও আজ পর্যন্ত সকলের চোখে এভারগ্রীন।কিন্তু এই নায়িকা সিঙ্গেল হয়েও কেন সিঁদুর পরেন?এই প্রশ্ন বারে বারে উঠে এসেছে।

অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে জুটি বেঁধেছিলেন রেখা। পরবর্তীকালে এই দুইজনার জুটিকে নিয়ে অনেক গল্প শোনা যায়,শোনা যায় তাদের প্রেমের কথা।তবে সময়ের সাথে সাথে রেখার এবং অমিতাভ বচ্চন এর মধ্যে দূরত্ব বাড়তে থাকে কারণ,অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে জয়া ভাদুড়ীর বিয়ে হয়ে যায়।

নিতু এবং রেখার মধ্যে সম্পর্কটা বেশ ঘনিষ্ঠ। নিতু এবং ঋষি কাপুরের বিয়ের অনুষ্ঠানে রেখা গিয়েছিলেন পৌঁছে এবং তাও সিঁদুর পড়ে। নানা রকম কথা ওঠে। স্থান টাইমস’কে দেওয়া রেখার সাক্ষাৎকারে জানা যায়, তার বক্তব্য তাকে নিয়ে কী লোকে ভাবে সে বিষয়ে তার কোনো চিন্তা-ভাবনা নেই তার কাছে সিঁদুর ভালো লাগে এবং সিঁদুর তাকে মানায় বলে এই রকম ভাবে সিঁদুর পরে।

১৯৮২ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে অভিনেত্রী ‘উমরাও জান’সিনেমাটির পুরস্কার জেতেন।সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি নিলাম সঞ্জীব রেড্ডি, তিনি অভিনেত্রীকে সিঁদুর পড়ার কথা জিজ্ঞেস করলে রেখা বলেন ‘আমি যে শহর থেকে এসেছি সেখানে সিঁদুর পরা একটা ফ্যাশন মাত্র’ এছাড়াও বিভিন্ন রকম কথা শোনা যায় যে শুধুমাত্র অমিতাভ বচ্চনের জন্য তিনি এখনো পর্যন্ত সিঁদুর পরেন।