সুশান্তের মৃত্যুর পরেও ডিলিট হয়েছে একাধিক টুইট, তদন্তে নয়া মোড়, টুইটারকে চিঠি পুলিশের

“সুশান্তের ব্যবহৃত সোশ্যাল মিডিয়া গুলি থেকে তথ্য সরানো হচ্ছে”, এই অভিযোগ অনেক আগে থেকেই উঠছিল। অভিযোগকারীদের মধ্যে ছিলেন সুশান্তের পরিবার, রাজনৈতিক মহলের কিছু ব্যক্তিত্ব এবং সর্বোপরি নেটিজেনরা। সুশান্তের মৃত্যুরহস্যের সঠিক কিনারা করতে বারবার কঠোর পুলিশি তদন্ত চেয়েছেন তারা।

তথ্য লোপাটের সম্ভাবনাকে একেবারেই উড়িয়ে দিচ্ছে না মুম্বাই পুলিশও। সন্দেহের বশে টুইটার ইন্ডিয়ার কাছে চিঠি যায় পুলিশের তরফ থেকে। চিঠিতে জানতে চাওয়া হয়, সত্যিই কি তার পোস্ট ডিলিট হয়েছে? নাকি তথ্য প্রমাণ লোপাট করতে কেউ ডিলিট করেছে তার পোস্ট!সুশান্তের টুইটার একাউন্টে দেখা যাচ্ছে, শেষ টুইটটি রয়েছে ২০১৯ সালের ২৭ ডিসেম্বরে। তারপর থেকে আর কোন পোস্ট নেই। এখানেই নিহীত রয়েছে সন্দেহের বীজ। সত্যিই কি তিনি তারপর থেকে আর কোন পোস্ট করেননি? নাকি এর পেছনে রয়েছে অন্য কারোর হাত! প্রশ্ন উঠছে পুলিশের মনে।

বিজেপি সাংসদ রূপা গঙ্গোপাধ্যায় অভিযোগ করেছিলেন, সুশান্তের মৃত্যুর আগে থেকেই একের পর এক ডিলিট হয়ে যায় তার টুইটার একাউন্টের পোস্ট। এমনকি মৃত্যুর পরও ইনস্টাগ্রাম ও টুইটার অ্যাকাউন্ট নিয়ে কেউ ঘাটাঘাটি করছে।অভিযোগ আরো জোরালো হয় যখন, সুশান্তের পরিবারের বন্ধু নীলোৎপল সরাসরি প্রশ্ন তোলেন সুশান্তের বেস্ট ফ্রেন্ড সন্দীপ সিং এর বিরুদ্ধে। সন্দীপ সিং কে ভালো করে জেরা হোক বলে পুলিশের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি। তবে পুলিশের তরফ থেকে সন্দীপ এ ব্যাপারে আর কিছু জানা যায়নি।