বি’য়ে হয়ে গেলেও এই দে’শে স’ঙ্গী’র সাথে স’ব’থে’কে বে’শি প্র’তা’র’ণা করা হয়ে থাকে!

আজ থেকে কিছু বছর আগেও স্বামী এবং স্ত্রী হাজার বিবাদ হলেও আলাদা থাকার কথা কোনদিন ভাবতেও পারতেন না । হাজার মনোমালিন্য হলেও একসাথে থাকার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করতেন তারা। তাদের মনোমালিন্যের প্রভাব যেন কোনোভাবেই তাদের সন্তানের উপর না পড়ে, সেই চেষ্টা তারা করতেন। একসাথে থাকতে গিয়ে অনেক সময় অনেক অত্যাচার মুখ বুজে সহ্য করতে হতো স্ত্রীদের।

কিন্তু এখন সভ্যতা এবং সমাজ দুটোই অনেকটাই এগিয়ে গেছে। আত্মনির্ভর এর পথে এগিয়েছে সমাজ। তাই এখন সম্পর্কে থাকা মানেই যে সহ্য করা তা কিন্তু নয়। এখন একে অপরের সঙ্গে আলোচনা করে বিবাহ বিচ্ছেদের পথে এগিয়ে যেতে পারেন স্বামী অথবা স্ত্রী। সম্প্রতি একটি সমীক্ষা করে জানা গেছে যে, আয়ারল্যান্ডের মানুষ সবথেকে বেশি প্রতারণা করেন পার্টনার কে। সমীক্ষা থেকে পাওয়া ফলাফল, প্রতি ৫ জনের মধ্যে একজন তাদের বিবাহিত সঙ্গীর সঙ্গে খুশি নয়, তারা লুকিয়ে অন্য সম্পর্কে জড়িয়ে যাচ্ছে।

এরপর দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে জার্মানি। জার্মানি 13% বাসিন্দা নাকি বিবাহিত হওয়া সত্ত্বেও অন্য নারী অথবা পুরুষের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছেন সম্পর্কে। এরপরই রয়েছে কলম্বিয়ার স্থান। চতুর্থ এবং পঞ্চম স্থানে রয়েছে যথাক্রমে ফ্রান্স এবং ইংল্যান্ড। তবে সমীক্ষা করতে গিয়ে আরো একটি অদ্ভুত বিষয় জানা গেছে তা হলো, অনেকেই বলতে চেয়েছেন যে, তাদের পার্টনারের যখন নিজেদের বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কে কথা তাদের জানান, তখন তারা তাদের শিক্ষা না দিয়ে ক্ষমা করে দেবার কথা চিন্তা করেন। মহিলাদের তুলনায় পুরুষরা ক্ষমা করার বিষয়ে বেশি একমত পোষণ করেছেন। তবে কোন মহিলা আর পুরুষ দের আগের মত বিশ্বাস করছেন না বলেই সমীক্ষায় উঠে এসেছে।