তার ছাড়াই এবার প্রতি বাড়িতে পৌঁছে যা’বে ইলেক্ট্রিক! এ’লো ন’য়া প্রযুক্তি

যতদিন যাচ্ছে টেকনোলজি ততই উন্নত হচ্ছে। আর তাতেই দিনে দিনে লাইফস্টাইল হয়ে উঠছে আরও বেশি সহজ। বিজ্ঞানের উন্নতিতে এবার Electricity ছাড়াই Electric Device চালনা করার পদ্ধতি আবিষ্কার করে ফেললেন বিজ্ঞানীরা! কি অবাক হচ্ছেন তো! সত্যিই যেন অসম্ভবকে সম্ভব করে ফেললেন বিজ্ঞানীরা। আর এই অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন ইউএস নেভাল রিসার্চ ল্যাবরেটরির বিজ্ঞানীরা।

এতদিন ধরে ফ্যান, টিভি, ফ্রিজসহ যাবতীয় বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম ব্যবহারের ক্ষেত্রে বিদ্যুৎবাহী তারের প্রয়োজন হয়েছে। তবে এবার বিজ্ঞানীদের নতুন গবেষণায় বিদ্যুৎবাহী তারের প্রয়োজন ফুরালো। এবার মোবাইল নেটওয়ার্কের মতো বিদ্যুৎ ব্যবহারের ক্ষেত্রেও ওয়ারলেস পরিষেবা পাওয়া যাবে।

সম্প্রতি বিজ্ঞানীদের এই পরীক্ষা সম্পূর্ণ হয়েছে এবং তারা সফল হয়েছেন। যদিও এই সিস্টেমটি বেশ পুরোনো। ১৯৮০ সালে বিজ্ঞানী টেসলা প্রথমে এই সিস্টেমটি আবিষ্কার করতে পেরেছিলেন। তিনি আবিষ্কার করেছিলেন টেসলা কয়েল।

আরো পড়ুন: শুধু পল্লবী ন’য়, সাগ্নিকের প্রথম প্রেমিকারও একই পরিণতি হয়েছিলো!

তবে তার মৃত্যুর পর এই বিষয়টি নিয়ে সেভাবে আর গবেষণা এগোয়নি। বর্তমানে এই প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা করে বিজ্ঞানীরা প্রমাণ করেছেন টেসলা কয়েলের সাহায্যে বিদ্যুৎ পাঠানো সম্ভব।

এর জন্য কোনও বিদ্যুৎ সংযোগকারী তারের প্রয়োজন হবে না। বিজ্ঞানীরা টেসলার মত কয়েল তৈরি করেছেন। ১ কিলোমিটারে ১.৬ কিলোওয়াট বিদ্যুৎ পাঠাতে পারবে এই কয়েল।

টেসলার নীতি অনুসরণ করে এই কয়েল বানানো হয়েছে। টেসলার সিস্টেম অনুসারে বিদ্যুৎকে মাইক্রোওভেন রূপান্তরিত করে রিসিভারের একটি বিমে ফোকাস করা হয়। সেখানে উপস্থিত আরএফ ডায়োডসহ একটি এক্স-ব্যান্ড ডাইপোল অ্যান্টেনা মাইক্রোওয়েভের সঙ্গে মিলিত হলে কারেন্ট উৎপন্ন হয়।

এর আগেও বেশ কয়েকটি দেশে এমন ধরনের গবেষণা করা হয়েছিল তবে তা অসফল হয়েছে। আমেরিকান প্রতিরক্ষামন্ত্রক প্রযুক্তির বিকাশের জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে। এই প্রযুক্তি একবার সফল হলে বহু মানুষ অনেক সুবিধা পাবেন এবং ওয়াইফাইয়ের মতো বিদ্যুৎ ঘরে ঘরে পৌঁছে যাবে।