কাদা-জলে না’ম’বে’ন না, মৎস্যজীবীদের কো’লে চে’পে তী’রে পৌঁছালেন মন্ত্রী, জনগণের তী’ব্র ক’টা’ক্ষ

সাধারণ মানুষের ভোটে জিতেই শাসনের গদিতে বসেন নেতা-মন্ত্রীরা। অথচ সেই সাধারণের জন্য কিছু করতে গিয়ে যদি মাঠে নামতে হয় তাহলে তার আগে নিজেদের ধুতির কোঁচা সামলাতেই ব্যস্ত হয়ে পড়েন। এই দৃশ্য নতুন কিছু নয়। ভোটের সময় সাধারণ মানুষের জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রতিশ্রুতি দিলেও ভোটে জেতার পর তারা যেন সেগুলি বেমালুম ভুলে যান। এমনটা আগেও বহুবার দেখা গিয়েছে। ভোটের জিতে শাসকের আসনে বসার পর সাধারণের প্রতি উদাসীনতা প্রদর্শন করে থাকেন বহু নেতা মন্ত্রী।

হালফিলে সেরকমই একটি দৃশ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ধরা পড়েছে। তামিলনাড়ুর ডিএমকে সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী অনিতা রাধাকৃষ্ণাণকে কেন্দ্র করে বিতর্কের ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কারণ সম্প্রতি তিনি চেন্নাই থেকে প্রায় ৬০ কিলোমিটার দূরে তামিলনাড়ু তিরুভাল্লুর এক সমুদ্র তীরবর্তী গ্রাম পুলিকাতে জেলেদের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে গিয়েছিলেন। তার সঙ্গে ছিলেন আধিকারিকেরা। তবে মৎস্যজীবীদের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে গিয়ে জলকাদায় নেমে নিজের কাপড় জামা নোংরা করতে চাননি তিনি।

নতুন জুতো এবং ধুতি যাতে না হয়ে যায় সে জন্য এক অভিনব পন্থা নিয়েছেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ঐ ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে অনিতা রাধাকৃষ্ণাণ মৎস্যজীবীদের কাঁধে চেপেই ওই জলকাদা ভরা এলাকা পেরিয়ে আসছেন। এমন দৃশ্য দেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় তার বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় বইছে। তিনি যেভাবে সাধারণ মৎস্যজীবীদের কাঁধে চেপে এলাকা পারাপার করছেন তাতে তার উদ্ধত্য প্রকাশ পেয়েছে বলে দাবি করেছেন অনেকেই।

সমালোচকদের মতে, অনিতা রাধাকৃষ্ণনের দম্ভ ও অহংকার তাকে জল-কাদায় নামতে দেয়নি। উপরন্তু তিনি সাধারণ জেলেদের কাঁধে চেপে যাতায়াত করছেন! ওইখানে উপস্থিত কয়েকজন ঘটনাটি ভিডিও মারফত ক্যামেরা বন্দী করে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করে দিয়েছেন। যাতে অনিতা রাধাকৃষ্ণণের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে।