আপনার কি কন্যা স’ন্তা’ন? দু’র্দা’ন্ত প্রকল্প কেন্দ্রের, ম্যা’চি’উ’রি’টি’তে ১৫ লা’খ স’ঞ্চ’য়ের সুযোগ!

কন্যা সন্তানদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের অভিনব প্রকল্প সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা। এই যোজনার আওতায় বিনিয়োগ করলে নির্দিষ্ট বছরের মেয়াদে কন্যা সন্তানদের লেখাপড়া এবং তাদের বিয়ের খরচ বাবদ বেশ মোটা অংকের টাকা রিটার্ন পাওয়া যায়। দেশের অন্যতম বড় রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের তরফ থেকে গ্রাহকদের সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনায় বিনিয়োগ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এই যোজনার আওতায় কন্যা সন্তানের বাবা-মা কিংবা অভিভাবকরা একটি কিংবা ততোধিক কন্যার নামে ভিন্ন ভিন্ন একাউন্ট খুলতে পারেন। পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক কন্যা সন্তানের অভিভাবকদের এই প্রকল্পের সুবিধা নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে। এই প্রকল্প সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে গেলে https://tinyurl.com/y3lwzpms ওয়েবসাইটে নজর রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

 এই প্রকল্পে ন্যূনতম ২৫০ টাকা ও সর্বাধিক ১,৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত জমা করা যেতে পারে ৷ এই অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ভবিষ্যতে মেয়ের লেখাপড়ার খরচের বোঝা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব ৷ প্রতীকী ছবি ৷

এই প্রকল্পে অন্যতম আড়াইশো টাকা থেকে সর্বাধিক দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করা যায়। এই প্রকল্পের সুদের হার ৭.৬ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে। একাউন্টের উপরে আয়করের কোপ বসে না। মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে এককালীন ১৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত পাওয়া যাবে। কোন ব্যক্তি যদি মাসিক তিন হাজার টাকা করে জমান সেক্ষেত্রে বাৎসরিক ৩৬,০০০ টাকা করে ১৪ বছর পরে বার্ষিক সুদের হার ৭.৬ শতাংশ হারে এককালীন ৯,১১,৫৭৪ টাকা হাতে পাবেন।

২১ বছরের মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে ১৫, ২২,২২১ টাকা পাওয়া যাবে। পোস্ট অফিস কিংবা ব্যাংক মারফত এই প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত হওয়া যায়। একাউন্ট খোলার জন্য পরিচয় পত্র হিসেবে প্যান কার্ড, রেশন কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, পাসপোর্ট ইত্যাদি এবং ঠিকানার প্রমাণপত্র হিসেবে রেশন কার্ড, বিদ্যুতের বিল, টেলিফোন বিল বা জলের বিল ব্যাংকে জমা দিতে হয়।