পেঁয়াজ মজুত করবেন না, পাইকারি ও খুচরো ব্যবসায়ীদের কড়া নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

এখন পেঁয়াজের দাম ফের আকাশ ছুয়েছে। বাংলার বাজারে পেঁয়াজের দাম ৮০ পেরিয়েছে এখন সেটা ১০০ র দিকে অগ্রসর হচ্ছে। আর তার প্রভাব বাংলাদেশেও, কারণ এখন সেখানেও পেঁয়াজের বাজার মূল্য খুবই চড়া, যার ফলে আকাশ দেখা গেছে পেঁয়াজের বাজারে। এমনটা যে বাংলাতে হবে না সেটা বলা যায় না, কারণ বাংলার পরিস্হিতি সেই দিকেই এগোচ্ছে। তাই এবার নবান্ন থেকে কড়া বার্তা পেঁয়াজ বিক্রেতার উদ্দেশ্যে। বলা হয়েছে যারা পাইকারি পেঁয়াজ বিক্রেতা তারা ২৫ মেট্রিক টনের ওপরে পেঁয়াজ মজুত করতে পারবে না, আর যারা কিনা খুচরো বিক্রেতা তারা ২ মেট্রিক টনের ওপরে পেঁয়াজ মজুত করতে পারবে না।

এই নিয়ম মেনেই চলতে হবে তাদের, আগামী সময় পর্যন্ত যতদিন না পেঁয়াজের বাজার স্বাভাবিক হয়, তবে এই কথার অন্যথা হলেই সরকার প্রশাসনের তরফ থেকে নেওয়া হবে ব্যবস্থা। গতকাল সাংবাদিক বৈঠকে তিনি অনেকটাই ক্ষুব্ধ হয়ে যান আর সেখানেই তিনি বলেন, এই আলু পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির জন্য কেবল কেন্দ্র দায়ী। তাদের বিভিন্ন সিদ্ধান্তের কারণেই এমন ভোগান্তির মধ্যে পরতে হচ্ছে মানুষকে। তিনি যে এই বিষয়ে কেন্দ্রকে চিঠি লিখতে চলেছেন সেটাও তিনি জানিয়েছেন, তিনি স্পষ্ট বলেছেন হয়তো এই বিষয়কে নিয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত নিতে হবে নয়তো রাজ্যের হাতে ছেড়ে দিতে হবে।

আসলে গতবার যখন পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়েছিল তখন রাজ্য সরকার এরমধ্যে হস্তক্ষেপ করেছিল কিন্তু এবার সেটা করার অধিকার নেই রাজ্যের। কারণ কেন্দ্র যে কৃষি আইন বানিয়েছে সেখানেই আলু ও পেঁয়াজকে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে, তাই যতক্ষণ না পরিস্হিতি বেগতিক হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত রাজ্য এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে পারবে না।

তাই এবার উপায় না পেয়ে রাজ্য নির্দেশ জারি করেছে, কেউ নিয়মের বাইরে যেতে পারবে না, কেউ নির্দিষ্ট পরিমাণের ওপরে পেঁয়াজ মজুত করতে পারবে না। যদি এমন কোনো খবর পাওয়া যায় তাহলে বিনা নোটিশেই তল্লাশি চালানোর অধিকার থাকবে রাজ্য পুলিশ প্রশাসনের।