মুখোমুখি দিলীপ ও কুনাল, দু’ই ঘোষের কি ক’থা হ’লো?

রাজনীতির আঙিনার বাইরে হঠাৎ দেখা। তবে একে অন্যকে এড়িয়ে গেলেন না কেউ। রাজনৈতিক অনুষ্ঠানের বাইরে দুই বিরোধী দলের নেতার সম্পর্ক কেমন হওয়া উচিত, তা প্রকাশ্যে দেখিয়ে দিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং রাজ্য তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। একটি বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল তাদের দুজনকে। দুজনেই সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তবে পরস্পরের প্রতি সৌহার্দ্য প্রদর্শনে কার্পণ্য করলেন না তারা।

ওই বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে দিলীপ ঘোষ এবং কুণাল ঘোষকে পাশাপাশি আসনে বসতে দেওয়া হয়েছিল। এতে দুই তরফেই কোনো আপত্তি ছিল না। এমনকি তাদের দুজনকে পাশাপাশি বসে দীর্ঘক্ষন আলোচনা করতেও দেখা গিয়েছে। তবে এই আলোচনা হয়েছে শান্তিপূর্ণভাবে। রাজনৈতিক তাপ উত্তাপের আঁচ ওই অনুষ্ঠানে ধরা পড়েনি। আবার সাধারণের আবেদনে সারা দিয়ে একই ফ্রেমে দাঁড়িয়ে ছবি তুলতেও বাধা দেননি তারা।

 সূত্রের খবর, একটি বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে এই দুই নেতাই আমন্ত্রিত ছিলেন। একই সময়ে দুই নেতা অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছে গেলে তাদের পাশাপাশি বসতে আসন দেওয়া হয়। দু'পক্ষের কেউই এতে কোনও বাধ সাধেননি।ছবি-আবীর ঘোষাল।

এতে কার্যত রাজনীতির পারদ ক্রমশ চড়ছে। রাজনৈতিক মহলে কুনাল ঘোষ এবং দিলীপ ঘোষকে নিয়ে তুমুল তরজা চলছে। তবে এতে অবশ্য অস্বাভাবিক কিছু দেখছেন না তারা দুজনেই। তাদের বক্তব্য, বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে পরস্পরের প্রতি এমন সৌজন্যমূলক আচরণই ছিল বাঞ্ছনীয়। উল্লেখ্য, এর আগে তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষের সঙ্গে বিজেপির বর্তমান সদস্য রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে এক সঙ্গেই দেখা গিয়েছিল।

ভোটের আগে আবার শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল কুণাল ঘোষকে। এই নিয়ে অবশ্য রাজনীতিতে কম তরজা চলেনি। প্রসঙ্গত, এক বিজেপির পুর অভিযান রয়েছে। যে অভিযানের নেতৃত্ব দেবেন দিলীপ ঘোষ। এদিকে তৃণমূলের হয়ে আসরে থাকছেন কুনাল ঘোষ।