১০-০ গোলে হার বিরোধীদের, বিবেকানন্দ স্মরণ মিছিল করে দাবি অভিষেকের

১২ ই জানুয়ারি, রাজ্যজুড়ে স্বামী বিবেকানন্দের জন্ম জয়ন্তী উৎসব পালন করা হয়েছে। বঙ্গের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি এদিন নিজেদের মতো করে স্বামীজির জন্মদিন পালন করেছে। তবে এই পবিত্র দিনেও রাজনৈতিক মহলের তরজা কিন্তু থেমে থাকেনি। একে অপরকে লক্ষ্য করে আক্রমণ, কটাক্ষ চললো প্রকাশ্যেই। এদিন দক্ষিণ কলকাতায় তৃণমূল যুব কংগ্রেসের উদ্যোগে আয়োজিত গোল পার্ক থেকে হাজরা মোড় পর্যন্ত মিছিলের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তৃণমূলের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এদিন সকালে বঙ্গ বিজেপির নেতাদের নেতৃত্বে শ্যামবাজার থেকে সিমলা ষ্ট্রিট পর্যন্ত বিজেপির মিছিল বের হয়। সেই মিছিলের জনসংখ্যার প্রতি কটাক্ষ হেনে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য, বিজেপির তুলনায় তৃণমূলের মিছিল বেশি ভারী। একদিনের নোটিশেই তৃণমূলের প্রতি মানুষের এহেন সমর্থন কার্যত দলের প্রতি তাদের বিশ্বাস, উচ্চাশা ও আকাঙ্ক্ষা ব্যক্ত করে। এতেই অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলিকে ১০-০ গোলে হারিয়ে দিয়েছে তৃণমূল, এমনটাই দাবি করেছেন অভিষেক।

পাশাপাশি বিজেপিকে কটাক্ষ করে তার বক্তব্য, গুজরাটে সর্দার বল্লভ ভাই প্যাটেলের মূর্তি স্থাপন করতে ৩,৫০০ কোটি টাকা খরচ করলো বিজেপি সরকার! তাহলে কলকাতার বুকে অন্তত তিন হাজার কোটি টাকা খরচ করে স্বামীজি অথবা নেতাজির মূর্তি স্থাপিত হবে না কেন? প্রশ্ন তুলেছেন তৃণমূলের সভাপতি। এদিন নিজের বক্তব্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রসঙ্গও টেনে এনেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি বলেছেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সাদরে অভ্যর্থনা করে ভারতে নিয়ে এলেন। সেই ডোনাল্ড ট্রাম্প বিবেকানন্দের নামের বিকৃতি ঘটিয়ে দিলেন! তখন পাশে বসে প্রধানমন্ত্রী হাততালি দিচ্ছেন! তার উচিত ছিল সেই সময় মাইক কেড়ে নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিবেকানন্দের নাম সঠিকভাবে উচ্চারণ করতে বলা। অভিষেক এদিন আরও বলেছেন, ” “ওদের” নেতারা বলেন বাংলায় বাঙ্গালীদের থেকে নাকি অবাঙালিদের অবদান বেশি! ওরাই ঈশ্বরচন্দ্রের মূর্তি ভাঙেন! বলেন, ইশ্বরচন্দ্র সহজপাঠ লিখেছেন! বাঙালির ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, কৃষ্টি সম্পর্কে এরা কিছুই জানেন না। বাংলার মানুষ এদের ক্ষমা করবেন না”।