NATO গোষ্ঠীতে গভীর ক্ষত, জার্মানি থেকে তড়িঘড়ি সেনা প্রত্যাহার ট্রাম্পের

সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জার্মানি থেকে ১২ হাজার আমেরিকান সেনা সরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। জার্মানির প্রতি প্রেসিডেন্টের অভিযোগ, জার্মানি প্রতিরক্ষা খাতে কোনো টাকা দিচ্ছে না। আমেরিকার টাকায় প্রতিরক্ষা এবং বাণিজ্য ক্ষেত্রে যথেষ্ট লাভ করেছে জার্মানি। আমেরিকা আর খরচ করতে পারবে না। এবার থেকে নিজেদের সুরক্ষার দায়িত্ব নিজেরাই নিক জার্মানি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডিফেন্স হেড কোয়ার্টার “পেন্টাগন”এর তরফ থেকে জানা গেছে, যে ১২ হাজার সৈন্যকে জার্মানি থেকে সরিয়ে নিতে চাইছে আমেরিকা, তাদের মধ্যে ৬ হাজার ৪০০ সেনা এবার থেকে দেশেই নিরাপত্তার কাজ করবেন। বাকিদের “ন্যাটো” ভুক্ত ইতালি, বেলজিয়াম সহ অন্যান্য রাষ্ট্রের নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্বে পাঠানো হবে। এভাবে জার্মানি থেকে প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ সেনা সরিয়ে নিতে চলেছে আমেরিকা।

মার্কিন সেনাবাহিনীর আধিকারিকেরা জানিয়েছেন, ইউরোপে সেনাবাহিনীর পূনর্বিন্যাস করতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমেরিকা। মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব মার্ক এসপার জানালেন, আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই সেনা সরিয়ে নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, বহুদিন আগে থেকেই “ন্যাটো” ভুক্ত অন্যান্য ইউরোপীয় দেশ গুলিকে প্রতিরক্ষা খাতে অর্থ ব্যয় করার কথা বলে আসছেন। তার বক্তব্য, ন্যাটোর খরচ বহন করা একা আমেরিকার দায়িত্ব নয়। তবে প্রেসিডেন্টের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছেন খোদ রিপাবলিকান পার্টি সিনেটের সদস্যরা। তাদের দাবি, এতে রাশিয়ার প্রতিপত্তি আরো বাড়বে।