মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে হাজার কে’জি মাছ, ২৫০ কেজি মিষ্টি পা’ঠা’লে’ন বাবা, হ’ত’বা’ক সকলেই

পৃথিবীর প্রত্যেক বাবা-মায চায় তাদের সন্তানদের সমস্ত আশা-আকাঙ্ক্ষা পূরণ করতে এবং সেই সময়টা আরো বেশি আশা পূরণ করতে চায় প্রত্যেক বাবা-মা যখন তার ছেলে কিংবা মেয়ের বিয়ে হয়ে থাকে। কেউ সাধ্যের বাইরে গিয়ে সন্তানের নানা আশা-আকাঙ্ক্ষা মেটায়, আবার যার সাধ্য থাকে তার কথা তো বলাই বাহুল্য। তারপরে যখন প্রত্যেক বাবা এবং মা বড় কিছু করতে চায়, যখন তাদের একটি মাত্রই সন্তান হয়।

প্রত্যেক বাবাই চায় তাদের সন্তানের খুশিকে আরও বেশি বড় করে উদযাপন করতে। এইবারে সেইরকমই উৎসব-আনন্দকে একেবারে তাক লাগিয়ে দিল অন্ধ্রপ্রদেশের এক বাবা। একমাত্র মেয়ের বিয়ে হয়েছে এবং তারপরেই শ্বশুরবাড়িতে পাঠিয়েছে এমন উপহার যা দেখেই সকলের চোখ একদমই ছানাবড়া।

বিয়ের পর উপহার হিসেবে হিসেবে মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে পাঠালেন ১০০০ কেজি এর একটি মাছ তার সাথে ২৫০ কেজি চিংড়ি, মুদিখানা সামগ্রী পাঠিয়েছেন ২৫০ কেজি, আচার ২৫০ শিশি, মিষ্টি প্রায় ২৫০ কেজি এবং ১০ টি ছাগল এবং ৫০ টি মুরগি।

তেলেগুর ঐতিহ্য অনুসারে বলা হয় যে, অশধ মাসুম অর্থাৎ পবিত্র মাস উপলক্ষে মেয়েকে তিনি এই সমস্ত উপহার দিয়েছে। এই ঘটনাটি ঘটেছে অন্ধ্রপ্রদেশের রাজামুন্দ্রিতে। বাবা হলেন একজন ব্যবসায়ী এবং তিনি তার মেয়ের বিয়েতে দিয়েছেন একদম রাজকীয় ভাবেই, সঙ্গে ছিল সেই রকমেরই উপহার। বিয়ের পর যখন পবিত্র মাসের নিয়ম অনুসারে তিনি মেয়েকে উপহার দিলেন তা একেবারে দেখে প্রত্যেকেই অবাক।