বার্ড ফ্লু-তেই মারা যাচ্ছে অজস্র কাক, এবার নজরে রয়েছে পোল্ট্রি ফার্ম, খতিয়ে দেখা হচ্ছে সব

মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে শ’য়ে শ’য়ে কাকের মৃত্যুতে কার্যত প্রশাসনের ঘুম উড়েছে। বিগত বেশ কয়েকদিন ধরেই সেখানে প্রায় কয়েকশো কাকের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পরীক্ষা করিয়ে জানা গেল, বার্ড ফ্লু সংক্রমণের কারণেই এত বিপুল পরিমাণে পাখির মৃত্যু হচ্ছে। বার্ড ফ্লু সংক্রমনের কথা জানতে পেরে প্রশাসনের উদ্বেগ আরও বেড়েছে। মধ্যপ্রদেশে সরকারিভাবে রাজ্যজুড়ে বার্ড-ফ্লু অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে বলে জানা গেল।

মধ্যপ্রদেশ সরকারের তরফ থেকে প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী, ২০২০ সালের ২৩শে ডিসেম্বর থেকে ২০২১ সালের ৩রা জানুয়ারি পর্যন্ত ইনদওরে ১৪২টি, মন্দসরে ১০০ টি, আগর -মালবাতে ১১২টি, খরগোন জেলায় ১৩টি এবং সিহোরে ৯ টি কাক মারা গিয়েছে। মৃত পাখিদের থেকে নমুনা সংগ্রহ করে ভোপালের ডিআই প্রয়োগশালায় পাঠানো হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, জেলা কালেক্টরের নির্দেশ মতো কাকের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেলেই জেলার পশুপালন বিভাগের আধিকারিকরা স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় সংশ্লিষ্ট বিভাগে রিপোর্ট পাঠাচ্ছেন।

মধ্যপ্রদেশের জন সম্পর্ক বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হলো, পশু পালন মন্ত্রী প্রেম সিং পটেল যত শীঘ্র সম্ভব কাকের মৃত্যুর সঠিক কারণ জেনে তা নিয়ন্ত্রণ করার নির্দেশ দিয়েছেন। এক্ষেত্রে পাখি মৃত্যু নিয়ন্ত্রণে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে জারি করার নির্দেশ পালনের কথা বলা হয়েছে। পশু পালন বিভাগের চিকিৎসক মনীক্ষ হঙ্গাল নিশ্চিত করেছেন এভাবে শ’য়ে শ’য়ে কাকের মৃত্যুর কারণ হলো বার্ড ফ্লু।

এদিকে বার্ড ফ্লু সংক্রমনের জেরে মধ্যপ্রদেশের বিভিন্ন পোলট্রি উৎপাদক বাজার, ফার্ম, জলাশয়ের পাখি এবং পরিযায়ি পাখিদের শরীরেও সংক্রমনের আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে বার্ড ফ্লু উপদ্রুত অঞ্চল চিহ্নিত করে পিপিই কিট , অ্যান্টি ভাইরাল ড্রাগ পাঠানো হচ্ছে। পাশাপাশি মৃত পাখিদের থেকে যাতে রোগ ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেই উদ্দেশ্যে দ্রুত ডিসপোজ ও ডিসইনফ্যাকট্যান্ট প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে।