অগ্রিম দু’লক্ষ টাকা না দেওয়ায় ক’রোনা রোগী পড়ে রইলো অ্যাম্বুল্যান্সেই! ডিসান হাসপাতালের বিরুদ্ধে অভিযোগ

এটা নতুন কিছু না, এর আগেও তাদের ঘাড়ে দোষ চেপেছিল, যে আগাম ২ লক্ষ টাকা না দেওয়া হলে করোনা রোগীকে ভর্তি করা হবে না হাসপাতালে। এবার ফের ২ লক্ষ টাকার কথা শোনা গেলো সেই ডিসান হাসপাতাল থেকেই। এবার আগাম ২ লক্ষ টাকা না দেওয়ায় করোনা রোগীকে ফের ভর্তি করা হল না হাসপাতালে, রোগী পরে থাকল এম্বুলেন্সেই।

আসলে জানা গিয়েছে শুভ্রা দেবীর স্বামী অশোক কুমার ঘোষ গ্যাসের সমস্যায় উডল্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি হয়। আর নিয়ম অনুযায়ী সেখানেই তার কোভিড টেস্ট করা, যেটার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। কিন্তু ৭ দিন পরে আবার টেস্ট করা হলে রিপোর্ট এবার পজিটিভ আসে। এর পরেই রোগীর পরিবার অভিযোগ করে যে, পজিটিভ আসার পরেই হাসপাতালের ব্যবহার বদলে যায়। আর তারা জানিয়ে দেয় রোগীকে তারা যেনো ডিসান হাসপাতালে নিয়ে যায়, কারণ উডল্যান্ডে করোনার চিকিৎসা হয় না।

এর পরেই ডিসানের দিকে রওনা দিলেই, ডিসানের তরফ থেকে এক কথা জানানো হয় আগাম ২ লক্ষ টাকা জমা না দিলে রোগীকে ভর্তি করা যাবে না। অনেক কাকুতি মিনতি করা হলেও কোনো কাজ হয় না। পরে সেই পরিবারের বিদেশের এক আত্মীয় ২ লক্ষ টাকা দিয়ে সাহায্য করলেই, অশোকবাবুর চিকিৎসা শুরু হয়। তার আগ পর্যন্ত রোগী ছিল এম্বুলেন্সেই।

সরকার বারবার না করা সত্ত্বেও এই সব হাসপাতাল এমন কাজ করে চলেছে। সরকার বলেছে করোনা চিকিৎসায় কোনোভাবেই অগ্রিম টাকা নেওয়া যাবে না। এমনকি ফেরানো যাবে না রোগীকেও। এবার সেই নির্দেশিকা মেনেই ডিসান হাসপাতালের ভূমিকা ক্ষতিয়ে দেখার দাবি উঠেছে।