ছিলেন হোম আইসোলেশনে, রাজ্যে করোনা আতঙ্কে আত্মঘাতী যুবক

এবার করোনা আতঙ্কে মৃত্যু হলো এক যুবকের। করোনার কারণে দেশজুড়ে চলছে লক ডাউন। মানুষকে বাড়ি থেকে বের হতে না করেছে দেশের সরকার। করোনাকে রুখতে এখন আসল দাওয়াই হলো সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, এই অবস্থায় সকলেই গৃহবন্দি হয়ে আছেন নিজেদের ইচ্ছের বিরুদ্ধে। তবে এবার পশ্চিমবঙ্গে এই করোনা আতঙ্কের জেরে মৃত্যু হলো যুবকের।

জানা গিয়েছে,ওই যুবককে হোম আইসোলেশনে থাকার নির্দেশ দেয় স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্মীরা, সেই আতঙ্কে সে আত্মহত্যা করে। ওই যুবকের নাম সুজিত বিশ্বাস, তার বয়স মাত্র 30 বছর। এই ঘটনা ঘটেছে কৃষ্ণনগরের কোতোয়ালিতে। ওই যুবক ভিনরাজ্যে কাজ করতেন, তিনি বাড়িতে ফেরার পরেই অসুস্থ বোধ করেন। কয়েকদিন ধরে ওই যুবক জ্বর, সর্দি কাশিতে ভুগছিলেন। এই খবর পেয়ে স্বাস্থকর্মীরা বাড়ি গিয়ে তার চেকআপ করেন। সেখানেই তাকে হোম আইসলেশনে থাকতে বলা হয়।

এই অবস্থায় ওই যুবক খুব মানসিক অবসাদে পরে যান। হোম আইসলেশনে তাকে 14 দিনের জন্য থাকতে বলা হয়। কিন্তু সে এই করোনার কারণে বেশ আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। মানসিক টেনশনে ওই যুবক গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন, তবে তিনি কোনো সুইসাইড নোট লিখে যায়নি। তবে স্থানীয়দের কথা অনুযায়ী ওই যুবক করোনা হয়েছে ভেবে আতঙ্কে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন। এই ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।