ক’রোনার জেরে ভারতে অনেকটাই কমেছে বিয়ের খরচ

আমাদের ভারতবর্ষে বিবাহ একটি জাঁকজমক অনুষ্ঠান। উচ্চবিত্ত থেকে নিম্নবিত্ত সকলেই চেষ্টা করেন তার সাধ্যমত খরচ করার নিজের ছেলে এবং মেয়ের বিয়েতে। বিবাহের সময় হেসে খেলে মানুষ লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে দিতে পারে। বিবাহের সময় চার দিন একটানা লোকজন খাওয়া থেকে শুরু করে সমস্ত রীতিনীতি সবকিছুতেই খরচ হয় দেদার। তবে চলতি বছরে এই বিবাহের খরচ অনেকটাই কমে এসেছে। ইচ্ছে থাকলে মানুষের খরচ করার কোন উপায় নেই।

যেখানে হাজার হাজার মানুষকে ডাকার কথা সেখানে মাত্র ৫০ জনকে নিমন্তন্ন করে খাওয়াতে হচ্ছে মানুষকে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই অনেক খরচ কমে যাচ্ছে এই অনুষ্ঠানে। কিন্তু তাও কিছু মানুষ নিজের মতো করে জমকালো করে বিবাহের খরচ করতে। এ বিষয়ে অর্থনীতি বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন,প্রতিদিন ভারত বর্ষের অর্থনীতি নেমে যাচ্ছে তলানিতে। প্রতিদিন চাকরি হারাচ্ছে লক্ষ লক্ষ মানুষ। এই সময়ে অর্থনীতি বিশেষজ্ঞরা মানুষদের বলতে চাইছেন, নিজের কাজের সময়ের জন্য অর্থ বাঁচিয়ে রাখাটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

অযথা একগাদা লক্ষ টাকা খরচ করার কোন মানে হয় না। আমাদের দেশে শিক্ষা থেকে আরম্ভ করে চিকিৎসা সবকিছুই খুবই ব্যয়বহুল।অর্থাৎ মানুষের জীবনের প্রতি পদক্ষেপে লাগবে অর্থ। তাই যে বিশাল অঙ্কের টাকা বিবাহের খরচ করবেন, সেই টাকা নিজের ছেলে মেয়ের ভবিষ্যতের জন্য রেখে দেওয়া বুদ্ধিমানের কাজ হবে। চলতি পরিস্থিতির মানুষ কে শিখিয়েছে অনেক কিছু। তাই অযথা টাকা নষ্ট করে সন্তানদের সুনিশ্চিত ভবিষ্যত গড়ার লক্ষ্যে সেই টাকা কাজে লাগানোর জন্য পরামর্শ দিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা।