একদম খারাপ ছবির তালিকায় প্রথমেই জায়গা হতে পারে “কুলি নম্বর ওয়ান”, নেই হাসির কোনো খোরাক

বরুণ ধাওয়ানের কুলি নাম্বার ওয়ান সিনেমাটি, খারাপ সিনেমার তালিকায় প্রথমেই থাকতে পারে। যত দিন যাচ্ছে সবকিছুই যেন বদলে যাচ্ছে সেটা খাওয়া থেকে শুরু হোক বা জামা কাপড় কিংবা মানুষের ইচ্ছা-অনিচ্ছা। ১৯৯৫ সালে গোবিন্দার কুলি নাম্বার ওয়ান সিনেমাটি হয়েছিল, এরপর প্রায় ২৫ বছর পরে একই রকম সিনেমায় অভিনয় করতে চলেছে ভারুন ধাওয়ান কিন্তু কতটা মজা আনন্দ দিতে পারবে সেটা নিয়েই যথেষ্ট প্রশ্ন রয়েছে ।

এই সিনেমাটি প্রযোজনা করছে ডেভিড ধাওয়ান একই রকম গল্প কিন্তু চরিত্রগুলি আলাদা তবে এই একই রকম গল্প কতখানি মানুষকে আনন্দ দিতে পারবে সেটাই দেখার বিষয়। তবে মনে করা হচ্ছে যে, এই একই রকম গল্প দেখা মানে শুধুমাত্র সময় নষ্ট। ডেভিড ধাওয়ান অনেক মজার মজার সিনেমা দর্শকদের উপহার দিয়েছে।

যেহেতু সময়ের সাথে সাথে সমস্ত বিষয় পরিবর্তন হচ্ছে তাই পুরনো সিনেমা গুলিকে নতুন ধাঁচে তৈরি করে প্রদর্শন করলেই যে সেটা পছন্দ হবে দর্শকের সেটা একেবারেই মনে করা সম্ভব নয়। সিনেমাটি একেবারে হাসির নয়। বরং যদি সিনেমাটি দেখা হয় তবে মন-মানসিকতা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। কোনরকম বাস্তবা বিষয় নেই সিনেমাটিতে। ওখানে একটি দৃশ্য আছে যেখানে দেখানো হয়েছে ট্রেনের সামনে থেকে একটি শিশুকে বাঁচানোর কিন্তু ওরকম ধরনের দৃশ্য দেখানোর মানে টা কোথায় সেটাই বোঝা গেল না।

একজন বড় লোকের ছেলে নায়িকাকে পটানোর জন্য সেজে এসেছে কাজের লোক হয়ে নায়িকার বাড়িতে। আবার কখনো মেয়ে সেজে নায়িকার বাবা কে পটাতে যাচ্ছে। সমস্ত কিছু দেখে যেন মনে হয় একেবারে যাচ্ছেতাই। নেই কোন সিক্যুয়েন্স। একেবারে দেখলে মনে হয় গল্পের গরু গাছে ওঠার মতো।