কাশ্মীরে সন্ত্রাস চালাতে চীনা মদত পাক জঙ্গিদের, জেহাদির কাছে পাওয়া যাচ্ছে একাধিক চীনা অস্ত্র

শনিবার রাতে উপত্যকা অঞ্চলের বারামুল্লার ডাঙ্গেরপোরা এলাকায় সন্ত্রাস দমন অভিযান চালিয়ে জঙ্গী ঘাঁটি থেকে প্রচুর পরিমাণে অস্ত্র উদ্ধার করে ভারতীয় সেনাবাহিনী। তবে, এই অস্ত্র গুলি চীন থেকে আমদানি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় নিরাপত্তারক্ষীরা। এরপর থেকেই চীনের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদে মদত দেওয়ার অভিযোগ আরও ঘোরালো হয়ে উঠেছে। কাশ্মীরের সন্ত্রাসবাদে পরোক্ষে চীনের উস্কানি রয়েছে বলেই মনে করছেন ভারতীয় সেনারা।

উল্লেখ্য, এতদিন জঙ্গী ঘাঁটি থেকে যে সমস্ত অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার হতো সেগুলি সবই পাকিস্তানে নির্মিত। ইসলামাবাদের ছাপ দেওয়া থাকতো সেগুলিতে। কিন্তু শনিবার রাতে উপত্যকা অঞ্চলের বারামুল্লা এলাকায় তল্লাশি অভিযান চালিয়ে জঙ্গিদের কাছ থেকে যে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে, সেগুলির বেশিরভাগটাই চীনে নির্মিত। ফলে, লাদাখে সীমান্ত উত্তেজনা ছড়ানোর পাশাপাশি, এবার উপত্যকা অঞ্চলেও পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদি কার্যকলাপে পরোক্ষে মদত যোগাচ্ছে চীন।

ভারতীয় সেনা সূত্রে খবর, এদিনের তল্লাশি অভিযানে প্রচুর অস্ত্রশস্ত্রসহ তিন জনকে গ্রেফতার করেছেন নিরাপত্তারক্ষীরা। জঙ্গিদের কাছ থেকে ম্যাগাজিন-সহ একটি চিনা পিস্তল, ৯ এমএম পিস্তল ও ১২ রাউন্ড কার্তুজ, একটি চিনা গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, চীনের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদে মদত দেওয়ার অভিযোগ কিন্তু এই প্রথম নয়। ভারতীয় গোয়েন্দা সূত্রে খবর, এর আগেও বহুবার উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলির বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলিকে উস্কানি দিয়েছে চীন।

দীর্ঘদিন ধরেই চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন গুলিকে অর্থ এবং অস্ত্রশস্ত্র দিয়ে সাহায্য করছে চীন। এবার পাকিস্তানে জঙ্গিদের কাছ থেকে চীনা অস্ত্র উদ্ধার হওয়ায় ভারতীয় গোয়েন্দাদের দাবি অনেকাংশেই সত্যি প্রমাণিত হলো। সীমান্তে উত্তেজনা ছড়ানোর পাশাপাশি, এবার উপত্যকা অঞ্চলেও পাক জঙ্গিদের ভারতের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে চাইছে চীন। বিষয়টি ভারতের পক্ষে যথেষ্ট উদ্বেগজনক। তাই, ভারতীয় নিরাপত্তা রক্ষীরা এবার চীন এবং পাকিস্তানের প্রতি আরও সতর্ক হয়েছেন।