বন্দুক সহ হাতে বল্লম নিয়ে লাদাখ সীমান্তে হানা চিনা বাহিনীর, প্রকাশ্যে এল ছবি

সোমবার, লাদাখের ভারত-চীন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর পোস্টে  হামলা চালাতে এগিয়ে আসে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির সদস্যরা। তাদের প্রত্যেকের হাতে ছিল বল্লম, কাঁধে অটোমেটিক রাইফেল। সম্প্রতি, একটি বিশিষ্ট সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের চিত্রে এমন দৃশ্যই ধরা পড়েছে। তবে, লাল ফৌজের উদ্দেশ্য সফল হতে দেননি ভারতীয় সৈনিকেরা। ভারতীয় সেনাবাহিনীর তৎপরতায় পিছু হটতে বাধ্য হয় অস্ত্রধারী চিনা সৈনিকেরা।

সংবাদমাধ্যমে্য চিত্রে যে এলাকার ছবি ধরা পড়েছে সেই এলাকাটি হলো, পূর্ব লাদাখের প্যাংগং হ্রদের দক্ষিণ পারে রেচিন লা-রেজাং লা-মুখপারি ও মগর হিলের মধ্যবর্তি অঞ্চলে অবস্থিত ভারতীয় সেনাবাহিনীর একটি ঘাঁটি, যেখান থেকে শত্রুপক্ষের সৈন্যদের ওপর নজরদারি চালান ভারতীয় সেনা জওয়ানরা। সেই ঘাঁটিতে হামলা চালাবার উদ্দেশ্যেই এগিয়ে আসে চীনা ড্রাগনের দল।

উল্লেখ্য, গত ১৫ই জুন এভাবেই ভারতীয় সেনাবাহিনীর ওপর আচমকা হামলা চালায় চীন। যার ফলে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় যুদ্ধক্ষেত্রে শহীদ হন ভারতের ২০ জন সেনা জওয়ান। ভারতীয় সেনাবাহিনীর সূত্রের খবর, এদিনও ঠিক একইভাবে ভারতীয় সেনাদের ওপর হামলা চালানোর উদ্দেশ্যে এগিয়ে এসেছিল চীন। শূন্যে কয়েক রাউন্ড গুলিও চালিয়েছিল হামলাকারীরা। তবে ভারতীয় সেনাদের পাল্টা রণহুঙ্কার এবং গুলি চালনায় সতর্ক হয়ে পালিয়ে যায় তারা।

উল্লেখ্য, গত মার্চ মাস থেকে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারতীয় ভূখণ্ড দখলের উদ্দেশ্যে ঘাঁটি গেড়ে বসে রয়েছে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি। ১৫ই জুনের পর থেকে সীমান্তে শান্তি পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে দফায় দফায় উভয় রাষ্ট্রের সেনা আধিকারিকদের মধ্যে বৈঠক হয়। তবে, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে শক্তি নারাজ চীন। ২৯-৩০শে আগস্টের রাতে পুনরায় ভারতীয় ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ চালানোর চেষ্টা করে চীনা সেনাবাহিনী। তবে ভারতীয় সেনাবাহিনী তৎপরতায় তাদের পরিকল্পনা ব্যাহত হয়। এদিন আবারো, সীমান্ত বিতর্ক উস্কে দিয়ে ভারতীয় সেনা ঘাঁটিতে আক্রমণ চালানোর উদ্দেশ্যে এগিয়ে আসে চীনা সেনাবাহিনী।