কি হবে গোলাপি নোটের ভবিষ্যৎ? অবশেষে দু’হাজারের নোট নিয়ে বিশেষ বিবৃতি দিল কেন্দ্র

সম্প্রতি, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার তরফ থেকে প্রকাশিত বার্ষিক রিপোর্টে জানানো হয়, ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে দু’হাজার টাকার কোনো নোট ছাপানো হয়নি। রিজার্ভ ব্যাংকের এই বিবৃতির পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় গুঞ্জন শুরু হয়, তাহলে এবার হয়তো ২ হাজার টাকার নোট বাতিল করে দিতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তবে সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে সম্প্রতি কেন্দ্রের তরফ থেকে প্রকাশিত বিবৃতিতে জানানো হলো, এই ধরনের কোনো সিদ্ধান্ত এখনো পর্যন্ত নেয়নি সরকার।

রবিবার সংসদের বাদল অধিবেশনে অংশ নিয়ে লোকসভায় কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর জানালেন, ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে দেশে ২ হাজার টাকার কোনো নোট ছাপানো হয়নি। পাশাপাশি, ২০২০-২১ অর্থবর্ষেও এই নোট নতুন করে ছাপানোর নির্দেশ দেয়নি কেন্দ্র। কিন্তু তা বলে আগামী দিনে দু’হাজার টাকার নোট ছাপানো বন্ধ করে দেওয়ার কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি কেন্দ্র। তিনি আরও জানালেন, বর্তমানে দু’হাজার টাকার নোট ছাপানো কমিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানিয়েছেন, দীর্ঘ ছয় মাস ধরে দেশে করোনা সংক্রমণ এবং লকডাউনের জেরে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র সরকার। তবে ভবিষ্যতে ধীরে ধীরে নোট উৎপাদন বৃদ্ধি করা হবে। উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর প্রাক্তন সচিব নৃপেন্দ্র মিশ্র জানান, ২০১৬ সালে নোটবন্দির আগে দু’হাজার টাকার নোট ছাপার বিরুদ্ধেই মত পোষণ করতেন প্রধানমন্ত্রী।

তবে নোট বন্দির পর বাজারে নগদের পরিমাণ বাড়াতে দু’হাজার টাকার নোট ছাপার পক্ষে মত দেন তিনি। ২০১৮ সালের মার্চ মাসের শেষে ভারতে মোট উৎপাদিত নোটের ৩.৩ শতাংশ ছিল দু’হাজার টাকার নোট। এরপর ২০১৯-এৱ মার্চের শেষে দেখা যায় দু’হাজার টাকার নোটের সংখ্যা কমে ৩ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। ২০২০ সালে তা আরও কমে গিয়ে ২.৪ শতাংশে গিয়ে নেমেছে।