কেন্দ্রের পদক্ষেপে এ যাত্রায় বেঁচে গেলো Bsnl এবং Mtnl

এ যেনো মরার হাত থেকে ফিরে আসা, কারণ দেখা যাচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ব টেলিকম সংস্থা বি এস এন এল ও এম টি এন এলের অবস্থা খুবই শোচনীয়। তবে এবার প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শে হয়ত আবারও প্রাণ ফিরে পেতে পারে এই সব টেলিকম সংস্থা। ইতিমধ্যে সরকারের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে মন্ত্রক, স্বশাসিত সংস্থা, রাষ্ট্রায়ত্ব শিল্প, সরকারি দফতর এই সব জায়গায় ব্যবহার করা যাবে না অন্যান্য বেসরকারী সংস্থা। তার জায়গায় কেবল ব্যবহার করতে হবে বি এস এন এল ও এম টি এন এল।

এই নিয়ে টেলিকম দফতরের তরফ থেকে বলা হয়েছে, আসলে এবার থেকে সরকারি দফতর, মন্ত্রক, রাষ্ট্রায়ত্ব সংস্থা, কেন্দ্রীয় স্বশাসিত প্রতিষ্ঠান সব জায়গায় ব্যবহার করতে হবে এই রাষ্ট্রায়ত্ব টেলিকম বি এস এন এল ও এম টি এন এল কে। যে মোমেরেন্ডাম পেশ করা হয়েছে সেখানেই এই বিষয়ে বলা হয়েছে, ব্রডব্যান্ড, ইনটারনেট এই সব ব্যবহারের জন্য প্রতিটি মন্ত্রক ও রাষ্ট্রায়ত্ব প্রতিষ্ঠান গুলোকে নিশ্চিত করার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে।

বর্তমানে রাষ্ট্রায়ত্ব টেলিকম সংস্থা বি এস এন এল ও এম টি এন এল একেবারে লোকসানের মধ্যে চলছে। ২০১৯-২০ তে যদি দেখা যায় লোক্সানের পরিমাণ ১৫ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এম টি এন এলের আবার ৩ হাজার ৬৯৪ কোটি। এদিকে আবার বি এস এন এল চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কিভাবে এই ক্ষতির হাত থেকে মুক্ত হওয়া যায়। তারা সভরেইন বন্ডের মাধ্যমে নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ও দৈনিক খরচ চালানোর জন্য ৮ হাজার ৫০০ কোটি টাকা তুলেছে। আর এই সময়েই সরকারের এই ধরনের সিদ্ধান্ত যে দুটি টেলিকম সংস্থাকে অক্সিজেন জোগাবে সেটা স্পষ্ট বোঝাই যাচ্ছে।