বাঁকুড়ার কোতুলপুরে তৃণমূল পার্টি অফিসে বোমা বিস্ফোরণ, জখম ৪

একুশের বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে রাজ্যের রাজনীতি এমনিতেই সরগরম। রাজ্যে চলতি দফায় শান্তিপূর্ণভাবে এবং নির্বিঘ্নে ভোট সম্পন্ন করাই নির্বাচন কমিশনের কাছে সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ। সেই চ্যালেঞ্জের শর্তপূরণের উদ্দেশ্যে ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর সদস্যরা বাংলায় প্রবেশ করেছেন। তা সত্ত্বেও রাজনৈতিক হিংসা হানাহানি এড়ানো যাচ্ছে না। ঠেকানো গেল না বোমাবাজিও।

বাঁকুড়ার কোতুলপুর বিধানসভা কেন্দ্রে আজ তৃনমূলীয় কার্যালয় কেঁপে উঠলো তীব্র বোমা বিস্ফোরণে। এই বোমা বিস্ফোরণ কাণ্ডে তৃণমূলের কার্যালয়ের চারজন সদস্য গুরুতর জখম হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। এরপর তাদের তৎপরতায় আহতদের নিকটস্থ আরামবাগ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

তৃণমূলীয় কার্যালয়ে বোমা বিস্ফোরণ কান্ডে রাজনীতির পারদ চড়ছে। বিরোধীদের দাবি বিধানসভা নির্বাচনের আগে বোমা তৈরীর আখড়া হয়ে উঠেছিল তৃণমূলের ওই কার্যালয়। বোমা বাঁধতে গিয়েই তা ফেটে গিয়ে এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করছে বিরোধী সিপিএম। তবে তৃণমূল অবশ্য সেই দাবি মানতে নারাজ। তৃণমূলের পাল্টা দাবি, বিরোধী সিপিএমের ষড়যন্ত্রেই এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে।

কোতুলপুরের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্য রাজনীতি জুড়ে অভিযোগ পাল্টা অভিযোগের পালা চলছে। তৃণমূল এবং সিপিএম প্রধানত এই কাণ্ডের জেরে একে অপরের প্রতি অভিযোগের আঙুল তুলছে। ভোট পর্বে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে আশংকা প্রকাশ করেছিল নির্বাচন কমিশন। কমিশনের সেই আশঙ্কাই বারংবার সত্য প্রমাণিত হচ্ছে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেই রাজনৈতিক হিংসা, হানাহানি, সংঘর্ষ, বোমাবাজির খবর মিলছে বারংবার।