বিয়ে হওয়া পুরুষদের প্রেমে পড়া নিয়ে অকপট উত্তর দিলেন বলিউড কিংবদন্তি রেখা

গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডের তিনি হলেন এমন একজন অভিনেত্রী যিনি আজও নিজের রূপ এবং যৌবন ধরে রাখতে পেরেছেন। যাকে আজও দেখলে প্রেমে পড়ে যেতে পারেন বহু পুরুষ। সম্প্রতি এই অভিনেত্রীকে দেখতে পাওয়া গেল সনি টিভির পরিচালনায় ইন্ডিয়ান আইডলের বিচারক হিসেবে উপস্থিত থাকতে। হ্যাঁ কথা বলছি অন্যতম অভিনেত্রী রেখার। এই রিয়েলিটি শোতে এসে অভিনেত্রী বিবাহিত পুরুষদের সঙ্গে প্রেমে পড়া নিয়ে নিজের বক্তব্য প্রকাশ করে রীতিমতো চর্চা শীর্ষে উঠে এসেছেন।

ইন্ডিয়া অ্যাডেলের সঞ্চালক জয় ভানুশালি, অভিনেত্রীর পাশে এই রিয়েলিটি শোতে বসে থাকা অন্যতম বিচারক কথা সংগীত শিল্পী নেহা কাক্কার কে প্রশ্ন করে বলেন যে, কখনো কোন মহিলাকে বিবাহিত পুরুষের প্রেমে পড়তে দেখেছেন? তখন এই প্রশ্নের উত্তরে নেহা কক্করের পাশে বসে থাকা বলিউডে গ্ল্যামার কুইন অর্থাৎ রেখা জানালেন যে, এই বিষয়ে আমাকে প্রশ্ন করতে পারেন। আবার সঙ্গে সঙ্গে হেসে বলেন যে, না আমি তো কিছু বলিনি।

অভিনেত্রী উত্তরে মঞ্চে উপস্থিত সকলেই হেসে ওঠেন। রেখা তার উত্তর এর মধ্য দিয়ে প্রশ্নের গভীরতাকে বুঝিয়ে দিলেন সকলকে। যদিও অভিনেত্রীর এই রকম উদ্ধারের পর সঞ্চালক বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছিলেন। ঠিক সেই মুহূর্তে কি বলা উচিত বুঝতে পারছিলেন না তিনি। জীবনের প্রাক্তন প্রেমিক অর্থাৎ অমিতাভ বচ্চনের দিকে ইঙ্গিত করে এই যে এই কথা বলেছেন রেখা তা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রেখার সিঁথিতে সিঁদুর পরা নিয়ে বহুবার বিতর্ক হলেও স্বয়ং রেখা এই নিয়ে কোনো রকম কথা বলে নি কোনদিন। তিনি সবসময় জানিয়েছেন যে তার সিঁদুর পরতে ভালোবাসেন বলেই তিনি পড়েন। তবে অনেকেই মনে করেন যে অমিতাভ বচ্চনের নাম করে এখনো সিঁথি রাঙিয়ে রেখেছেন রেখা। একসময় তাদের প্রেম বলিউডের অন্যতম চর্চার বিষয় ছিল।

ধীরে ধীরে সময়ের সাথে সাথে তারা দুজনেই পরিণত হয়েছেন এবং নিজের জীবনে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। অমিতাভ বচ্চনের জীবনে এসেছিলেন জয়া কিন্তু রেখার জীবনে এসেছিলেন পরবর্তীকালে বহু মানুষ, এক কথায় বলা যেতে পারে বহু পুরুষ। তবে বহু পুরুষের সঙ্গে প্রেম করলেও তিনি সিঁদুর কিনতে পারেন একমাত্র অমিতাভ বচ্চনের নামে। একথা তিনি নিজেও স্বীকার না করলে অস্বীকারও কোনদিন করেননি। ব্যক্তিগত জীবনে বিয়ের কয়েক মাসের মধ্যেই রেখার স্বামী গলায় দড়ি দিয়ে মারা যান, তখন তাকে বহু কটুক্তি শিকার হতে হয়েছিল। তারপর আর কারোর সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হননি তিনি।