মাথাভাঙায় বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে শুটআউট–বোমাবাজি, গুলিবিদ্ধ এক তৃণমূল কর্মী

মাথাভাঙায় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীদের গুলিতে গুলিবিদ্ধ তৃণমূল কংগ্রেসের এক কর্মী। গতকাল রাতে মাথাভাঙা থানার হাজরাহাট গ্রাম পঞ্চায়েতের বালাসি গ্রামে তৃণমূল ও বিজেপি কর্মী সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ওই ঘটনায় আব্দুল জলিল মিয়াঁ নামে এক তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তিনি বর্তমানে কোচবিহারের একটি নার্সিং হোমে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।তৃণমূলের অভিযোগ, শনিবার রাতে দলীয় সভা থেকে গ্রামে ফেরার পর এই ঘটনাটি ঘটে। মাথাভাঙার বালাসি গ্রামে ওই তৃণমূলকর্মীর ওপর হামলা চালায় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। অভিযোগ, প্রথমে তারা বোমাবাজি করে এলাকা অশান্ত করে তোলে।

এর পরই তৃণমূলকর্মী আবদুল জলিল মিঞাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। তাঁর পায়ে গুলি লেগেছে বলে জানা গিয়েছে। এমনকি ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে মুখের চোয়াল ভেঙে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় রেফার করা হলে তাঁকে কোচবিহার একটি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়।

ওই অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপি পাল্টা অভিযোগ করেছে, তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে এলাকা দখলকে ঘিরে বিবাদ চলছে। সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বেরই পরিণতি এদিনের গোলাগুলির ঘটনা। এতে বিজেপি কোনওভাবেই জড়িত নয়।বর্তমানে বালাসি এলাকা থমথমে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ টহল দিচ্ছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, জখম ব্যক্তির পরিবার ও তৃণমূলের তরফ থেকে মাথাভাঙা থানায় ২০ জনের নামে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমে ৭ জনকে আটক করা হয়েছে পুলিশ। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়ন করা হয়েছে।