“ন্যা’য্য মূ’ল্যে বুদ্ধিজীবী চা’ই”, ফেক ভ্যা’ক’সি’ন কা’ণ্ডে প্রতিবাদ জানাতে নয়া প’থ বিজেপির

কসবার ভুয়ো ভ্যাক্সিনেশন কেন্দ্র এবং ভুয়ো আইএএস দেবাঞ্জন দেব প্রসঙ্গে উত্তপ্ত রাজ্য রাজনীতি। বিজেপি এবং তৃণমূল কার্যত এ প্রসঙ্গে একে অপরের প্রতি কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি করতেই ব্যস্ত। বিজেপির দাবি, তৃণমূলের যোগসাজশেই দেবাঞ্জন দেব এতদিন সকলের অলক্ষ্যে তার জাল কার্যকলাপ চালিয়ে আসছিলেন। অপরপক্ষে তৃণমূলের সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় দেবাঞ্জনের ড্রাইভার/বডিগার্ডের সঙ্গে রাজ্যপালের একটি ছবি দেখিয়ে বিজেপির দিকেই প্রশ্ন তুলেছেন।

যদিও তৃণমূলের একাধিক উচ্চস্তরের নেতা এবং বিধায়ক-সাংসদদের সঙ্গে দেবাঞ্জনের ছবি দেখা গিয়েছে এবং তৃণমূলের তরফের নুসরাত জাহান ও শান্তনু সেনের সঙ্গেও দেবাঞ্জনের বডিগার্ডের ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। তৃণমূল ছাড়াও বিজেপির নিশানায় রয়েছেন রাজ্যের বুদ্ধিজীবীরা। বিজেপির দাবি, রাজ্যে যে এত বড় একটা ঘটনা ঘটে গেল। বুদ্ধিজীবীরা চুপ কেন?

বুদ্ধিজীবীদের নিশানা করে এবার রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডে বুদ্ধিজীবীদের বিরুদ্ধে রাস্তা নেমে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করলেন বিজেপি নেতা কর্মীরা। শনিবার ভিক্টোরিয়া, চিড়িয়াখানা, কালীঘাট সহ বিভিন্ন জায়গায় আজ বিজেপির নেতা-কর্মীরা ছোট ছোট ভাগে বিভক্ত হয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। ভুয়ো ভ্যাক্সিনেশন কেন্দ্র প্রসঙ্গে রাস্তায় নেমে প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভ দেখেছেন তারা।

বাংলা, হিন্দি এবং ইংরেজি ভাষাতে প্ল্যাকার্ড ছাপিয়ে সেই প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ দেখান নেতাকর্মীরা। “ভ্যাকসিন জিহাদ”, “ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডে প্রতিবাদ জানানোর জন্য ন্যায্য মূল্যে বুদ্ধিজীবী চাই”, এই মর্মে প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা। প্রসঙ্গত এর আগেও বিভিন্ন ইস্যুতে রাজ্যের বুদ্ধিজীবীদের নিশানা করে তোপ দেগেছে বিজেপি। বিজেপির একাধিক নেতার বক্তব্য, রাজ্যের বুদ্ধিজীবীরা টাকার বিনিময়ে শুধু সরকারের হয়ে প্রতিবাদ করেন। সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগের ক্ষেত্রে তাদের টিকিটিরও দেখা মেলে না।