নিজের থেকেও আবেদনময়ী বিপাশা, সহ্য করতে না পেরে প্রকাশ্যেই চড় মেরেছিলেন করিনা

বি-টাউনের তারকাদের ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে জানার জন্য মুখিয়ে থাকেন আমজনতা। বলি দুনিয়ার তারকাদের পারস্পরিক সম্পর্ক কেমন? মিডিয়ার সামনে তারা যেভাবে ধরা দেন, বাস্তবেও কি তারা একে অপরের সঙ্গে ততটাই সাবলীল এবং বন্ধুত্বপূর্ণ? এমনই সব প্রশ্ন ঘোরাফেরা করে মনের আনাচে কানাচে। বি-টাউনে রেষারেষি প্রচুর। কে, কাকে, কোনসময় টেক্কা দিয়ে এগিয়ে যাবেন তা আগে থেকে কেউ বলতে পারে না।

এই নিয়েই শুরু হয় মনোমালিন্য, বন্ধু বিচ্ছেদ এমনকি মুখ দেখাদেখি পর্যন্ত বন্ধ হয়ে যায়। যেমনটা হয়েছিল বলিউড অভিনেত্রী করিনা কাপুর এবং তৎকালীন বলিউডের উঠতি বাঙালি অভিনেত্রী বিপাশা বাসুর মধ্যে। জনপ্রিয় ছবি “আজনবী”ই ছিল তাদের রেষারেষির কারণ। কারণ এই ছবিতে সাহসী কিছু দৃশ্যে অভিনয় করেই দর্শকের দৃষ্টি কেড়ে নিয়েছিলেন বিপাশা বাসু।

ছবিতে অক্ষয় কুমারের বিপরীতে ছিলেন বিপাশা এবং ববি দেওলের বিপরীতে করিনা। বিপাশার চরিত্রটি অবশ্য সিনেমার নিরিখে তেমন গুরুত্বপূর্ণ ছিল না। কিন্তু বেশ কিছু সাহসী দৃশ্যে অভিনয় করেই তৎকালীন সংবাদ মাধ্যমগুলির পেজ থ্রিতে জায়গা করে নেন বিপাশা বাসু। এই কৌশল করিনার মোটেই পছন্দ হয়নি। বিপাশার প্রতি তিনি এতটাই বিরক্ত হয়েছিলেন যে তার গায়ের রংকে কটাক্ষ করে তাকে প্রকাশ্যে “কালী বিল্লি” বলতেও বাঁধেনি করিনার।

এখানেই শেষ নয়। “আজনাবি”র শুটিং সেটেই নাকি বিপাশাকে চড় মেরে বসেন করিনা। ববি দেওল এসে পরিস্থিতি সামলে নেন। এ রকমই ছিল বিপাশা এবং করিনা সম্পর্ক। পরে অবশ্য তাদের সম্পর্কে পরিবর্তন এসেছে। সাম্প্রতিককালে সেইফ আলী খানের জন্মদিনে নিমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে ছিলেন বিপাশা। সেখানে করিনা বিপাশাকে জড়িয়ে ধরেন। যা দেখে পাপারাজিৎদের অনুমান বলিউডের এই দুই তাবড় অভিনেত্রীর মধ্যে সম্পর্কের উন্নতি ঘটেছে।