বিগবস সিজন ১৪, ঘরের মধ্যেই চললো উদ্দাম যৌনতা, ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে ইন্ডাস্ট্রির একাধিক তারকা

সাম্প্রতিক শুরু হয়েছে বিগ বস সিজন ১৪। কিছুদিন আগেও এই সঠিক শুরু হওয়া নিয়ে বিপুল অনিশ্চয়তা ছিল। অবশেষে বিগ বস কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল তারা যথাযথভাবেই প্রতিবারের মত এবারেও সঠিক শুরু করতে চলেছেন। তাদের প্রতিশ্রুতি মতোই সর্বকালের শ্রেষ্ঠ রিয়েলিটি শো বিগ বস’ ১৪ আবার শুরু হয়েছে। তবে এইবারের সিজন মনে হচ্ছে অন্য দিকে যেতে পারে। ইতিমধ্যেই বিগবসের হাউস বেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে সিনিয়র আর জুনিয়রদের নিয়ে। হাউসে এখন লিড করছে সিদ্ধার্থ শুক্লা এবং গওহর খান। এদের নির্দেশনাতে বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে হাউসে। এই দুজনের সাথে সাথে এদের দলে আরও একজন আছেন, তিনি হলেন হিনা খান। এখন এই তিন জনের হাতেই দেওয়া আছে হাউসের সমস্ত পাওয়ার।

এর ফলে তাদের বিভিন্ন ভুল নির্দেশনায় বিরোধী হয়ে উঠছেন বাকি প্রতিযোগিরা। যদিও তাতে তেমন কোন ফল হবে না কারণ এই তিনজন হাউসের যে কোনো সদস্যকে যেকোনো সময় নমিনেট করার ক্ষমতা রাখে। বিগ বসকে মনে করা হতো একটি পারিবারিক রিয়ালিটি শো। তবে এই সিজন ১৪ তে মনে হয় “বিগ বস” হট রিয়েলিটি শো তে পরিণত হতে চলেছে।

সিদ্ধার্থের হাতে আছে ইমিউনিটি পাওয়ার যেটি সে একজন প্রতিযোগী কেই দিতে সক্ষম। তাই তাকে ইমপ্রেস করার জন্য চলছে নানান রকম হট কার্যকলাপ। সিদ্ধার্থ কে ইমপ্রেস করতে হয় কার্যকলাপের সাথে যুক্ত হয়েছেন পরিবারের একাধিক মহিলা সদস্য। বিগ বস ইতিমধ্যে দলের চার সদস্যকে একটি নতুন টাস্ক দেয়, এই চারজন সদস্যরা হলো – “পবিত্রা পুনিয়া”,”জ্যাসমিন ভাসিন”, “নিক্কি তম্বোলি” এবং “রুবিনা দিলাইক”। টাস্ক টি হল এই চারজনের মধ্যে যে সিদ্ধার্থ কে ইমপ্রেস করতে পারবে সেই পেয়ে যাবে সিদ্ধার্থের তরফ থেকে ইমিউনিটি পাওয়ার। এই টাস্কের কথা শুনে সিদ্ধার্থ যদিও বেশ খুশি হয়েছেন কিন্তু টাস্কটির ফলে ঘটা বিভিন্ন দৃষ্টিকটু কার্যকলাপ দর্শকদের একদমই পছন্দ হয়নি।

একসময় দেখা যাচ্ছে ব্যাকগ্রাউন্ডে চলছে রোমান্টিক গান আর তার সাথে হট পোশাক পরে বিভিন্ন পোজে চলছে সিদ্ধার্থকে ইমপ্রেস করার চেষ্টা।আবার পরবর্তীকালে দেখা যাচ্ছে একজন সদস্য নিজের গায়ে জল ঢেলে ভেজা অবস্থায় সিদ্ধার্থের কাছে একদম ঘনিষ্ঠভাবে চলে গেছেন তাকে ইমপ্রেস করার জন্য। জনসমক্ষে ঘটা এরকম ঘটনা দেখে দর্শকরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। একাধিক দর্শক জানিয়েছেন এটা যদি শুধুমাত্র টিআরপি বাড়ানোর জন্য করা হয়ে থাকে তবে এটা অত্যন্ত নিন্দনীয়।