Big Breaking: জিতলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, হারলেন শুভেন্দু

অপেক্ষার অবসান। অবশেষে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের লড়াই প্রায় শেষ হলো। শেষ হলো মমতা-শুভেন্দুর প্রেস্টিজ ফাইট। এই লড়াইয়ের ময়দানে শেষ হাসি হাসলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ১৭ দফার কাউন্টিং শেষে প্রায় ১২০০ ভোটে শুভেন্দুকে হারিয়ে নিজের জয়ের ইতিহাস ধরে রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর ফলাফল এল প্রকাশ্যে।

উল্লেখ্য, এই দফায় মমতা এবং শুভেন্দুর মধ্যে কিন্তু হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে। কেউ কারো কে একটু জায়গা ছেড়ে দিতে রাজি ছিলেন না। তৃণমূল সুপ্রিমোর এককালীন সেনাপতি শুভেন্দু অধিকারী দল ত্যাগ করে বিজেপি শিবিরের খুঁটি শক্ত করেছেন। তবুও শেষ রক্ষা হল না। নন্দীগ্রামে শুভেন্দুর ম্যাজিকের তুলনায় মমতা-ম্যাজিকই কাজ করলো। সকল জল্পনা এড়িয়ে জিতে গেলেন তৃণমূল নেত্রী।

প্রসঙ্গত এদিন সকাল থেকেই নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারী ছিলেন এগিয়ে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অবশ্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এগোতে শুরু করেন। আট দফা কাউন্টিং শেষে শুভেন্দু অধিকারীকে টেক্কা দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এগিয়ে যান। ১৭ দফা নির্বাচন শেষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অবস্থান স্পষ্ট হলো। হেরে গেলেন শুভেন্দু। একইসঙ্গে একুশের নির্বাচনে ২০০ আসলে যেতে বিজেপির রাজ্য দখল করার স্বপ্নও শেষ হয়ে গেল।

প্রসঙ্গত, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বরা বারংবার ২০০ আসন পার করার কথা বললেও তৃণমূলের ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোর কিন্তু আগেই বলে দিয়েছিলেন এই নির্বাচনে তিন অংক পেরোতে পারবে না বিজেপি। সেই কথা অক্ষরে অক্ষরে মিলে গেল। জয়ের উল্লাসে মেতে উঠেছেন সারা বাংলার তৃণমূল সমর্থকরা।