মায়ের পেটে উঁকি দিচ্ছে বেলুগা তিমি, আল্ট্রাসনোগ্রাম ভিডিওতে উপচে পড়লো নেটিজেনদের ভিড়

সন্তান কিভাবে সৃষ্টি হয় এবং কিভাবে সেটা গর্ভের মধ্যে বেড়ে ওঠে সেটা আমরা সকলেই জানি। এটা জানি না যে গর্ভস্থ সন্তান কিভাবে গর্ভের মধ্যে থেকেই নাড়াচাড়া করে। যেটা হয়েছে বাস্তবে এটা কোন মানবজাতির মধ্যে নয়, এটা ঘটেছে এক জলজ প্রাণীর মধ্যে। মা তিমি যার গর্ভস্থ সন্তান বেড়ে উঠছে তাও আবার নড়াচড়া করে।

এই ভিডিও ভাইরাল হলো সনোগ্রামে, যা স্বাভাবিকভাবেই সকলকে বিস্ময় করে দিয়েছে সকলকে। এই ভিডিওটি সান অন্তনিওর সিওয়ার্ল্ড আমিউজমেন্ট পার্ক তার নিজেদের পেজে শেয়ার করেছেন এবং যেখানে, যাচ্ছে সেই পার্কের নানারকম দৃশ্য এবং সেটি দেখে বোঝা যাচ্ছে যে বাইরে থেকে আসা মানুষদের আনন্দেতে যাতে কোনরকম বাঁধা না আসে সেই বিষয়েও তারা লক্ষ্য রেখেছে।

যার ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে সেটি হল একটি তিমি মাছ। অদ্ভুত ব্যাপার যে একটি তিমি কখনই এক জায়গায় থাকে না এইরকম একটি তিমির স্থিরভাবে কোনরকম ভিডিও তৈরি করা সত্যিই ভীষণ বিস্ময়কর। তবে এই ধরনের একটি অসাধারণ কাজ করেছে প্রশিক্ষিত কর্মীরা। মা তিমির নাম তার লুনা এবং যখন তার জন্য সনোগ্রামের ভিডিও করা হচ্ছিল তখন সে একদম চুপচাপ ছিল যার জন্যেই এই ভিডিওটা পার্ক কর্তৃপক্ষের পক্ষে করা সম্ভব হয়েছিল।

পার্ক কর্মীরা ডিউটি করেছিল তারা ২৪ ঘন্টায় লুনার দেখাশোনা করে। লুনা আগেও দুটি সন্তানের জন্ম দিয়েছে প্রথম সন্তান টির নাম অ্যাটলাএবং দ্বিতীয় টির নাম হচ্ছে স্যামসন। বেলুগা যে সমস্ত তিমি রয়েছে তাদের খেয়ালখুশিমতো তারা চলে, কখনো তাদের সন্তানদের কাছে থাকে, আবার কখনো তারা সন্তানদের নিজের থেকে দূরে করে দেয়।

লুনা তার প্রথম সন্তান অ্যাটলাকে নিজে থেকে দূরে করে দিয়েছিল। যার জন্য সে বড় হয় পার্কের কর্মীদের কাছে। লুনার মত তিমিরা প্রায় ২৩৫ থেকে ৫০ বছর জীবিত থাকে। লুনার গর্ভে রয়েছে আরেকটি নতুন সন্তান এবং যাকে ভিডিওতে দেখা গেছে পেটের ভেতরে নড়াচড়া করতে এবং যার ভিডিওটি ভীষণভাবে ভাইরাল হয়ে গেছে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। এখন দেখার বিষয় যে নতুন সন্তানকে লুনা কতটা কাছে রাখতে পারে।