পাকিস্তানি সমর্থকদের নিয়ে চি’ন্তা’য় বাংলাদেশ, পাক ক্রিকেটারদের খুল্লামখুল্লা স’ম’র্থ’ন

ইতিহাস বইয়ের পাতা ওল্টালে দেখা যাবে ১৯৭১ সালে বর্তমান স্বাধীন বাংলাদেশের মিরপুরে নিরীহ বাঙালিদের উপর গণহত্যায় মেতেছিল তৎকালীন পাক হানাদাররা। সেই পুণ্যভূমিতেই কারও মুখে বাংলা হরফে লেখা ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’।

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-পাকিস্তান টি-২০ ম্যাচে দর্শক গ্যালারিতে চাঁদ-তারা পতাকা দেখা গিয়েছে। বাংলাদেশের যেভাবে পাকিস্তানকে সমর্থন জানানো হয়েছে, তা নিয়ে শুরু হয়েছে তীব্র বিতর্ক।একাধিক টেলিভিশন ও ডিজিটাল মিডিয়ায় সাক্ষাৎকারে শুদ্ধ বাংলায় পাকিস্তানকে সমর্থন জানিয়েছেন অনেকে। যা কষ্ট দিয়েছে বহু বাঙালিকে। বাঙালির কাছে গর্বের লাল-সবুজ পতাকা।

নিজের দেশের মাটিতে দাঁড়িয়ে যাঁরা ‘পিয়ারে পাকিস্তান’ নামে গলা ফাটাচ্ছেন, তাঁরা আসলে নিজেদের পরিচয়হীনতারই পরিচয় দিচ্ছেন বলেই তোপ দেগেছে নেটদুনিয়ার একাংশ। বিপথে যাওয়া প্রজন্মের এই ছবি নিয়ে শঙ্কিত মাশরাফি মোরতাজারাও। অনুশীলনে পাকিস্তানের পতাকা উত্তোলন করায় ব্যথিত দেশের বিশিষ্টজনরাও। সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অনেকেই।

পাকিস্তানি ক্রিকেটাররাও এমনকী গ্যালারির এই দৃশ্য দেখে বিস্মিত। ঢাকায় পা রাখার পরই বাবর আজম জানিয়েছিলেন, “বাংলাদেশে আমাদের অনেক সমর্থক রয়েছে। বিমানবন্দর থেকে হোটেলে যাওয়ার সময়ই অনেককে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে আমাদের শুভেচ্ছা জানাতে দেখেছি।”