আমার ম’তো সতীর অ’ভি’শা’প লা’গা’য় বঙ্গ বিজেপি শে’ষ হয়েছে: সুজাতা মন্ডল

সতী নারীর অভিশাপ লেগে বঙ্গ বিজেপি শেষ হয়েছে। হ্যাঁ, সম্প্রতি নিজেকে ‘সতী’ বলে পরিচয় দিলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী সুজাতা মন্ডল। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের অন্দরে উঁকিঝুঁকি মারলে বোঝা যাবে রাজনীতির সঙ্গে জড়িত সকল চরিত্র‌ই মঞ্চাভিনেতা বা অভিনেত্রীর তুলনায় কম যান না। এইসব রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের একেকটি বক্তব্য যেন নাটকের সংলাপ। সম্প্রতি ফের একবার মিডিয়ার লাইমলাইটে জায়গা করে নিয়েছে তৃণমূল নেত্রী সুজাতা মন্ডল।

বর্তমানে স্বামীর সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয়েছে শুধুমাত্র রাজনৈতিক কারণে। বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদানের পরপরই স্ত্রী সুজাতাকে ডিভোর্সের চিঠি পাঠিয়েছিলেন সৌমিত্র খাঁ। ভোটের অনেক আগের এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে চলেছিল নাটকীয় মহরা। অশ্রুসজল চোখে সুজাতা মন্ডল এবং সৌমিত্র খাঁ দুজনেই একে অপরকে দোষারোপ করেছেন। সুজাতা মন্ডল এবার সুর চড়িয়ে নিজেকে সতী সাবিত্রীর সঙ্গে তুলনা করেছেন । বিজেপির কলকাতা কর্পোরেশন অভিযানে দেখা মেলেনি সৌমিত্র খাঁয়ের।

এই প্রসঙ্গে সুজাতা মন্ডল জানিয়েছেন,”গত ২ রা মে’র পরে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির কোনো অস্তিত্ব নেই সেটা সারা রাজ্যের মানুষ জানেন। বাংলার মানুষের ভোটের রায় বুঝিয়ে দিয়েছে যে বাংলার মানুষ বাংলার মেয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই চেয়েছে ।”তিনি আরও বলেন, “সৌমিত্র খাঁ বিজেপির সাংসদ হয়েছেন। তাঁর হয়তো মনে হচ্ছে যে বিজেপি দলের হয়ে এই নাচন কোঁদন করে আর কোনো লাভ হচ্ছে না।”

এমনকি সুজাতা মন্ডল বিজেপির দিকে আঙ্গুল তুলে বলেছেন, “যে মানুষ বিজেপিকে ছুড়ে ফেলে দিয়েছে শুধুমাত্র বিজেপির ভুল সিদ্ধান্তের জন্য। ৭৪ জন এম‌এল‌এ এবং ১৮ জন এমপির , তারা ক’দিন বিজেপিতে থাকে সেটাই এখন দেখার বিষয়। বিজেপি হল ঘর ভাঙ্গার দল। আমি আজ‌ও বলছি এবং আগামী দিনেও বলবো যে, আমার মতো একজন সতী নারীর সংসার ভাঙ্গন ধরানোর জন্য আমার অভিশাপে বিজেপি রাজ্য থেকে সমূলে বিনষ্ট হয়ে গিয়েছে, এবার আগামী ২০২৪ এর ভোটে তারা কেন্দ্র থেকেও মুছে যাবে।”

অনেক মানুষই তাঁর এই মন্তব্যে ক্ষুব্ধ । তাদের বক্তব্য, ‘সুতাজা মন্ডল নিজেকে সতী সাবিত্রী বলে দাবি করছেন অথচ ভোট পূর্ববর্তী সময়ে তিনি সাধারণ মানুষের সঙ্গে যে দুর্ব্যবহার করেছেন, মিডিয়ার দৌলতে তা সকলেই দেখেছেন। এরপরেও তিনি এতো ঔদ্ধত্য দেখানোর সাহস পান কীভাবে ?”