বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকে খতম হয়েছিল প্রায় ৩০০ জঙ্গি, অবশেষে স্বীকার করলো পাক কূটনীতিবিদ

পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক একেবারেই অবনতির দিকে চলে গেছে, এরই মধ্যে আবার পাকিস্তানের তরফ থেকে দ্বিমত করা হচ্ছে সন্ত্রাসবাদ নিয়ে। ইসলামবাদী যে জেহাদের ব্যাপারটিকে আরো গুরুতর করছে এটাই এবার স্বীকার করলেন পাকিস্তানের এক কূটনীতিবিদ। তিনি একটি সাংবাদিক সাক্ষাৎকারেই বললেন যে, ভারতীয় বায়ুসেনা বালাকোটে যে হামলা চালিয়েছিল তার জন্য প্রায় ৩০০ জন জেহাদ মারা গিয়েছিল।

২০১৯ সালের সেই ভয়ঙ্কর ঘটনাটি আজও সকলের মনে কাটা দিয়ে ওঠে। যে বছরটিতে জম্মু কাশ্মীরের পুলওয়ামায় যে সমস্ত নিরাপত্তা বাহিনীর থাকে তাদের ওপর হামলা চালিয়েছিল পাকিস্তানের জঙ্গিরা। এই হামলার ফলে সেই দিন শহীদ হয়ে যায় একসাথে ৪০ জন জাওয়ান। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভারতের পক্ষ থেকে নেওয়া হয় একটি পদক্ষেপ। পাকিস্তানের বালাকোট জঙ্গিদের যে সমস্ত লঞ্চপ্যাডগুলি ছিল সেগুলোকে টার্গেট করে ভারত জঙ্গি ঘাঁটিতে বোমা করে ওই ঘটনার সাথে জড়িয়ে ছিল অভিনন্দন বর্তমানের সাহসের কথা আজও সকলে স্মৃতির পাতায় স্মরণ করে রেখেছে।

পাকিস্তান জানিয়েছিল ভারতের ওই হামলা তে কোন ক্ষতি হয়নি পাকিস্তানের কিন্তু সেই কথা কি এবার ভুল প্রমাণিত করে উত্তর দিলেন পাকিস্তানের এক কূটনীতিবিদ । আঘা হিলালী একটি সাক্ষাৎকারে বলেন যে, পাকিস্থানে ভারত যে যুদ্ধ চালিয়েছিল তার জন্য প্রায় ৩০০ জন জেহাদের মৃত্যু হয়, এবং এর পরেই পাকিস্তানের তরফ থেকেই ভারতের সেনা ঘাঁটিকে নিশানা করা হয়েছিল”।

আগের বছরের অক্টোবর মাসেই মুসলিম লীগের এক নেতা জানিয়েছিল যে, যখন পাকিস্তানের ওপর হামলা চালিয়েছিল ভারত সেই সময়ে পা কাঁপার মতো অবস্থা হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তিনি জানিয়েছিলেন যে ভারতের হামলার ভয়ে আবার অভিনন্দন বর্তমানকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। অভিনন্দন বর্তমানকে পাকিস্তান তাদের হেফাজতে নিয়ে বেশ বিপদে পড়ে গিয়েছিল। সুতরাং নতুন ভাবে আবার পাকিস্তানের কূটনীতিবিদ তা স্বীকার করে পাকিস্তানের মুখ কিছুটা নামিয়ে দিলো বলেই মনে করছে সকলে।