রেঁস্তোরার নামে খারাপ রিভিউ, গ্রেফতার মার্কিন নাগরিক, খোয়াতে হলো চাকরি

সোশ্যাল মিডিয়াতে এখন কোন সিনেমা অথবা রেস্টুরেন্ট সম্পর্কে ভালো অথবা খারাপ ভিডিও দেওয়ার চল রয়েছে। বাক স্বাধীনতাকে ভুল ভাবে প্রয়োগ করেন অনেকেই।শুধুমাত্র একটি ব্যক্তির খারাপ অথবা ভালো বলায় যে কোন একটি ব্যবসাকে ক্ষতির মুখোমুখি হতে হয়, এটি কিন্তু ভাবেন না অনেকেই। সম্প্রতি থাইল্যান্ডের “সি ভিউ কো চ্যাং” রেস্টুরেন্টে খেতে গিয়েছিলেন একজন আমেরিকান ব্যক্তি। তার নাম ওয়েলসি বার্নেশ। কিরে থাইল্যান্ড একটি বেসরকারি স্কুলে শিক্ষকতা করেন। দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের খবর অনুযায়ী, এই ব্যক্তি অভিযোগ করেছেন যে, তিনি একটি রেস্টুরেন্টে গিয়েছিলেন মদের বোতল নিয়ে। মদের বোতল নিয়ে প্রবেশ করার জন্য তাকে ১৫ ডলার দিতে বলা হয়েছিল। সেখানে শুরু হয় তর্কাতর্কি

অবশেষে ব্যক্তির কথা কর্তৃপক্ষ রাজি হয়ে যায়। কিন্তু রেস্টুরেন্ট থেকে ফিরে এসে “ট্রিপ এডভাইসর”ওয়েবসাইটে এই রেস্টুরেন্ট সম্পর্কে ওই ব্যক্তি মন্তব্য করলেন যে,”এটাই করোনাভাইরাস। ভুল করে কেউ যাবে না ওখানে।আধুনিক যুগে থাইল্যান্ডের মানুষের ক্রীতদাস প্রথা কে কে সমর্থন করবেন না”। দ্বিতীয় লাইনটি বলার কারণ হলো তিনি দেখেছেন যে,”একজন কর্মীর সঙ্গে নাকি অত্যান্ত খারাপ ব্যবহার করেছেন রেস্টুরেন্টের মালিক”। তবে এই বিষয়ে রেস্টুরেন্ট দাবি করেছেন যে, ওই ব্যক্তি যা বলেছেন সবই রঙ ছড়ানো। ওই ব্যক্তির নামে মামলা করার আগে বহুবার তার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়েছে।

কিন্তু কোনভাবেই রেস্টুরেন্টের মালিক এর কথায় সাড়া না দিয়ে অনবরত তাদের নামে নেতিবাচক কথা বলে গেছেন ওই ব্যক্তি।এরপরই আর দেরি না করে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মানহানির মামলা এবং ইন্টারনেটে ভুল তথ্য লেখার জন্য মামলা দায়ের করা হয়। এই অপরাধ করার জন্য তাকে দুই দিনের জন্য জেলে থাকতে হয়। তারপর প্রায় ৩,১৬০ ডলার জরিমানা দিয়ে জামিন পান তিনি। জেল খাটার কারণে তার চাকরি চলে যায়। এরপর তিনি একেবারে ভেঙে পড়েন।