পাগলু গানে রাস্তায় অসাধারণ নাচ অসহায় মহিলার, মুহূর্তে ভাইরাল ভিডিও

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া এক উল্লেখযোগ্য প্লাটফর্ম যেখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন প্রতিভা জন্ম নিচ্ছে, আর তা আমরা দেখে উপভোগ করতে পাচ্ছি। দীর্ঘ লকডাউন এর সময় থেকেই এই দুনিয়া শক্তিশালী হয়ে উঠেছে, কারণ তখন একমাত্র এই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছিল অস্ত্র, বলা যেতে পারে যার সাহায্যে মানুষের কাছে ঘরে ঘরে পৌঁছে যাওয়া যেত। এই দীর্ঘ লকডাউনে সমস্ত প্রতিভারা তাদের প্রতিভা দেখিয়েছে। অভিনেতা-অভিনেত্রী থেকে সাধারণ মানুষ সবাই ঘরবন্দি ছিলেন সেই সময়। সমস্ত কাজকর্ম প্রত্যেকেরই জীবনে স্তব্ধ হয়ে গেছিল ।রোজি রোজগার বন্ধ, জীবনে একঘেয়েমি তায় ভরে গিয়েছিল।

এই একঘেয়েমি কাটাতে মানুষ সোশ্যাল মিডিয়াকে বেছে নিয়েছিল ,তবে এর প্রভাবে একটি ভালো দিক হলো আমরা প্রচুর বহুমুখী প্রতিভার খোঁজ পেয়েছি। পৃথিবীর আনাচে-কানাচে সমস্ত মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারতাম না তারা এখন আমাদের কাছে পৌঁছোতে পারছে। এই মিডিয়ার মাধ্যমে তেমনই একটি প্রতিভা ভিডিও ভাইরাল হয়েছে ফেসবুকে, তাতে দেখা যাচ্ছে এক মধ্যবয়স্ক মহিলা “লে পাগলু ডান্স” যে গানটি অত্যন্ত জনপ্রিয় ।

দেবের সিনেমার একটি জনপ্রিয় গান যাতে আট থেকে আশি সবাই ডান্স করতে থাকে। কেউই থাকতে পারে না স্থীর, সে রকম একটি গানে এই মহিলা অসাধারণ ডান্স পারফরম্যান্স দিচ্ছে। কোন মন্দির চত্বরে হবে আশেপাশের পরিবেশ দেখে যা মনে হচ্ছে এবং তার পোষাক আশাক দেখে যা মনে হচ্ছে তার সেরকম ক্ষমতা নেই ,পোশাক-আশাক অত্যন্ত নোংরা ভিক্ষাবৃত্তি করে হয়তো নিজের জীবন ধারন করে।

যেটুকু ভিডিও দেখে মনে হয় কিন্তু তার নাচের স্টেপ অত্যন্ত সুন্দর ।বডি ল্যাঙ্গুয়েজ বডি মুভমেন্ট সবকিছু দুর্দান্ত ।এই বয়সে এত ফিটনেস ভাবাই যায় না ।এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়া আপলোড হওয়ার সাথে সাথে চূড়ান্ত ভাইরাল হয়েছে। অনেকেই অবশ্য এটাকে নিয়ে হাসি তামাশা করেছেন তবে অনেকে প্রশংসাও করেছেন।

একটা কথা মনে রাখতে হবে পৃথিবীতে দুই ধরনের মানুষ আছে যারা মানুষেরই সমালোচনা করতে ভালোবাসে ,হাসি তামাশা করতে ভালোবাসে আর একদল মানুষ যারা মানুষের প্রশংসা করতে ভালোবাসো। মানুষকে উৎসাহিত করতে ভালোবাসেন, ভালো চায় সবার। নিজেরা ঠিক করে নেওয়া উচিত যে সকলকে পাত্তা না দিয়ে নিজের লক্ষ্যে এগিয়ে যাওয়াটাই জীবনের মূল লক্ষ্য হওয়া উচিত।