প্লাস্টিক সার্জারি করে ঠোঁটের আকার ঠিক করার চেষ্টা, সাম্প্রতিক ছবি দেখে সন্দেহ বাড়ছে ভক্তদের

বলিউড অথবা টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে প্লাস্টিক সার্জারি কথাটা কোন নতুন কথা নয়। প্লাস্টিক সার্জারি, লিভ ইনজেকশন, হেয়ার লাইন কালেকশন, এই সমস্ত প্লাস্টিক বিউটি ট্রাপে পড়ে যান অভিনেতা থেকে অভিনেত্রী সকলে। নিজেকে আরো সুন্দর করে তোলার জন্য এই সমস্ত নামিদামি চিকিৎসাশাস্ত্রের কাছে মাথা নিচু করে সমস্ত অভিনেতা অভিনেত্রীরা। এই সমস্ত অভিনেতা অভিনেত্রীদের মধ্যে নাম রয়েছে বাঙালি অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা সেনের।হঠাৎ করে অভিনেত্রী র ঠোঁটে পরিবর্তন স্বাভাবিকভাবেই নজরে এসেছিল সকলের।

নেটিজেনদের বক্তব্য, ঐন্দ্রিলা চক্রবর্তী তার উপরের ঠোট নিয়ে রীতিমতো কারসাজি করেছেন। তার আগে ঠোঁট অনেকটাই মোটা ছিল।কিন্তু এখন তার ওপরে ঠোঁট আগের থেকে অনেকটাই পাতলা হয়েছে, অর্থাৎ তিনি অপারেশন করিয়েছেন। এই চিকিৎসাকে সোজা বাংলা ভাষায় বলা হয় প্লাস্টিক সার্জারি অথবা লিপ ইনজেকশন। অনুষ্কা শর্মা, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, ঐশ্বর্য রাই বচ্চন, ক্যাটরিনা কাইফ অনেকেই এই সার্জারি করিয়েছেন।

কাজল প্লাস্টিক সার্জারির দ্বারা নিজের গায়ের রং অনেকটাই ফর্সা করিয়েছেন।আবার অন্যদিকে আয়েশা টাকিয়া লিপ ইঞ্জেকশন করতে গিয়ে তার ক্যারিয়ার নষ্ট করে ফেলেছেন। নিন্দুকদের কথায়, এই তালিকায় নাম রয়েছে শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়, নুসরাত জাহান, সায়ন্তিকা মুখোপাধ্যায় এবং মিমি চক্রবর্তীর নাম।

সম্প্রতি ঐন্দ্রিলা সেনের বেশ কিছু ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সম্প্রতি কোন ধারাবাহিকতা বা কোন ছবিতে কাজ করতে চলেছেন, পুজোর প্রস্তুতি কেমন, এই সমস্ত আলোচনা না করে তার এডিট করা ছবি নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গেছে নেট দুনিয়ায়।

View this post on Instagram

Life is a collection of moments 🥰 @ankush.official

A post shared by Oindrila Sen (@love_oindrila) on

অনেকেরই দাবি, অভিনেত্রী নাকি নিজের ছবিতে অ্যাপ্লিকেশনের সাহায্যে নিজেকে রোগা বানিয়েছেন।তবে ঐন্দ্রিলা চক্রবর্তীর ভক্তরা অবশ্য বলেছেন যে সম্পূর্ণ পরিচর্যা করে কঠোর পরিশ্রম করে তবে তিনি মেদ ঝরিয়েছেন। তার ছবির মধ্যে নেই কোন এডিটিং। কিন্তু পক্ষে এবং বিপক্ষে উভয় দিকেই পাল্লা ভারী, তাই এই বিবাদ সহজে যে মেটার নয় তা স্পষ্ট।