মসজিদে হামলা, প্রাক্তণ ফুটবলারকে গুলি করে খুন, ব্যাপক চাঞ্চল্য

মসজিদ মানেই হল পবিত্র স্থান। মানুষজন সেখানে ধর্মীয় আলাপচারিতার মাধ্যমেই প্রতিস্থাপিত করে নিজেদের। কিন্ত সেখানেও যদি প্রাণ নিশ্চয়তায় ভোগে সাধারণ মানুষজন তাহলে বিশ্বাসের আর কিছু অবশিষ্ট থাকেনা। এরমই একটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটে গেলো মসজিদের মতো পবিত্র স্থানে। এই নিয়ে ইতিমধ্যেই নেটিজেনদের মধ্যে একটি অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

প্রসঙ্গত, মসজিদে নামাজ পড়ার সময় সোমালিয়ার প্রাক্তন গোলরক্ষক আবদিওয়ালি ওলাদ কানিয়ারেকে গুলি করে হত্যা করল একদল দুষ্কৃতি। এই প্রসঙ্গে, সোমালিয়ার ফুটবল ফেডারেশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে,এই ফুটবলার তখন নাকি মসজিদে নামাজ আদায় করতে কানিয়ারে গিয়েছিলেন। তখনই দুষ্কৃতিরা মসজিদে প্রবেশ করে এবং তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান তিনি।

২০১৫ সালে ফুটবল থেকে অবসর নিয়েছিলেন কানিয়ারে। এরপরে অর্থাৎ অবসর নেওয়ার পর একবারেই পুরোদমে কোচিং করাতেন তিনি।শুধু তাই নয়, সোমালিয়ার যুব দলে গোলকিপার এর কোচ হিসাবেও নাকি যথেষ্ট দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন তিনি।এছাড়াও এই ৩৯ বছর বয়সী প্রাক্তন ফুটবলার কানিয়ারে স্থানীয় একটি ক্লাবের কোচ হিসাবেও নিযুক্ত ছিলেন। সিএএফ ‘বি’ লাইসেন্স এটির প্রমাণ হিসেবে পাওয়া গিয়েছে।

ইতিমধ্যেই সে দেশের প্রশাসন এই হিসেবে সরব হয়েছে। পুলিশি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এবং তদন্ত ও চলছে পুরোদমে কে বা কারা তাঁকে খুন করল ইতিমধ্যেই এ নিয়ে শুরু করেছে জল্পনা। এই বিষয়ে সে দেশের প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, এটি একটি অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা। তবে অপরাধীদের অবশ্যই শাস্তি হবে। তাঁর তাদের সাধ্যমত এই বিষয়ে চেষ্টা অবশ্যই করবে।