নতুন বছরের প্রথমেই ফের গোলাগুলি কাশ্মীরে, পাক গুলিতে শহীদ এক সেনা জওয়ান

নতুন বছরের প্রথম দিনেও ভারতীয় সেনার রক্তে রাঙ্গা হয়ে উঠলো সীমান্ত। নেপথ্যে পাক সেনাবাহিনীর হামলা। ভারতীয় সীমান্তরক্ষীবাহিনী সূত্রে খবর, শুক্রবার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে ফের সীমান্তে গোলা বর্ষণ করে পাকিস্তান। যে কারণে জম্মু-কাশ্মীরের রাজৌরির নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারতীয় রেজিমেন্টের এক সেনা জওয়ান শহীদ হলেন বছরের প্রথম দিনেই!

সেনাবাহিনী সূত্রে খবর, শুক্রবার বেলা প্রায় সাড়ে ৩টে থেকেই সংঘর্ষবিরতি লংঘন করে পাকিস্তান। সীমান্তের ওপার থেকে ভারতীয় সেনা ঘাঁটি লক্ষ্য করে আক্রমণ চালিয়ে বসে পাক সেনাবাহিনী। রাজৌরির নৌশেরা সেক্টরে এদিন বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত উভয়পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি চলে। নিয়ন্ত্রণরেখা লাগোয়া অঞ্চলগুলিও গোলাগুলির আক্রমণের হাত থেকে নিস্তার পায়নি। ভারতীয় সেনাদের আঘাত করাই মূলত এদিনের আক্রমণের মূল লক্ষ্য ছিল।

ঘটনার পর ভারতীয় সেনার এক মুখপাত্র জানান, বিনা প্ররোচনাতেই আবারও সীমান্ত পেরিয়ে গোলা বর্ষণ শুরু করে পাকিস্তান। গোলাগুলির পাশাপাশি ভারতীয় সেনাদের লক্ষ্য করে মর্টার শেলও ছোঁড়ে তারা। তবে পাকিস্তানের আঘাতের পাল্টা জবাব দেন ভারতীয় সেনারা। উভয়পক্ষের সংঘর্ষ চলাকালীন সীমান্তের ওপার থেকে ছুটে আসা এক গোলার আঘাতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান ওই সেনা কর্মী।

সীমান্ত সূত্রে খবর, এদিন ভারতীয় সেনার তরফ থেকে কড়া জবাব পেয়ে অবশ্য কিছুক্ষণের জন্য যুদ্ধবিরতি নিতে বাধ্য হয় পাকসেনা। তবে বিকেল পাঁচটা নাগাদ পুনরায় আঘাত করতে শুরু করে তারা। ওই সময়েই পাক গোলাবর্ষণের মুখে পড়ে গুরুতর আহত হন ভারতীয় সেনা জওয়ান নায়েব সুবেদার রবীন্দর। বছরের প্রথম দিনে পাকসেনার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের কারণে ভারত মাতার বীর সন্তান নায়েব সুবেদার রবীন্দর শহীদ হলেন।