ভোট এগিয়ে আসতেই গরম হয়ে উঠেছে উত্তরবঙ্গের রাজনীতি

আলিপুরদুয়ার- ভোট যত এগিয়ে আসছে উত্তরের চা শ্রমিকদের দাবি নিয়েও সুর চরাচ্ছে সব দল। কেউ মজুরি বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন, তো কেউ আবার বন্ধ চাবাগান খোলার প্রতিশ্রতি দিচ্ছে। এক কথায় বুধবার চায়ে গরম হয়ে উঠেছে উত্তরের রাজনীতি। বিজেপি ক্ষমতায় এলে চা শ্রমিকদের ৩৩০ টাকা মজুরি নির্ধারন করবে। চা শ্রমিকদের জমির পাট্টার জন্য সুনির্দিষ্টভাবে কাজ করবে আমাদের সরকার। বুধবার আলিপুরদুয়ারে এসে চা শ্রমিকদের মিছিলে এই প্রতিশ্রুতি দিলেন বিজেপির নেতা সায়ন্তন বসু।

এদিন আলিপুরদুয়ারে চা শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি সহ একাধিক দাবিতে মিছিল করে বিজেপি। আলিপুরদুয়ার শহরের বি এম ক্লাবের মাঠ থেকে মিছিল করে বিজেপি জেলা শাসকের দফতরের সামনে পৌছায়। মিছিল শেষে জেলা শাসককে স্মারকলিপি দেয় বিজেপি। এই মিছিলে হাটেন বিজেপির নেতা সায়ন্তন বসু, বিজেপির জেলা সভাপতি গঙ্গা প্রসাদ শর্মা সহ অন্যান্য নেতারা। মিছিল শেষে জেলা শাসকের দফতরের সামনে সভা করে বিজেপি। সেই সভাতে ভাষনে চা শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধিতে এমন প্রতিশ্রুতি দেন সায়ন্তন।

অন্যদিকে বুধবার শ্রমিক মেলায় এসে প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে তীব্র ভাষায় আক্রমন করলেন রাজ্যের শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক। বুধবার আলিপুদুয়ার জেলার বীরপাড়া হাইস্কুলে শ্রমিক মেলার উদ্বোধন করেন রাজ্যের শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক। এদিন আবহাওয়া খারাপ থাকার জন্য তার বিমান দেরিতে আসে। আর সেই কারনে আলিপুরদুয়ার জেলা সদরে শ্রমিক মেলার উদ্বোধন করতে পারেননি মলয় ঘটক। পরবর্তীতে তিনি বীরপাড়াতে শ্রমিক মেলার উদ্বোধন করেন। বীরপাড়াতে শ্রমিক মেলায় শ্রমমন্ত্রীর সাথে ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের আলিপুরদুয়ারে বিশেষ দায়িত্ব প্রাপ্ত নেতা ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়, আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি মৃদুল গোস্বামি, আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের সহকারি সভাধিপতি মনোরঞ্জন দে সহ বিভিন্ন তৃণমূলের নেতারা।

এদিন শ্রমিক মেলায় শ্রমমন্ত্রীর হাত দিয়ে অসংগঠিত শ্রমিকদের নানান পরিষেবা প্রদান করা হয়। এদিন বীরপাড়া হাইস্কুলে শ্রমিক মেলায় প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে তীব্র ভাষায় আক্রমন করেন মলয় ঘটক। তিনি বলেন, ” ২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন আমি চাওয়ালা। মানুষ ভেবেছিলেন চাওয়ালা প্রধান মন্ত্রী হলে গরীব মানুষের জন্য কাজ করবেন। কিন্তু নরেন্দ্র মোদি কোন কাজই করেননি। এর পর যখন আবার ভোট এলো তখন চাওয়ালা আর খাচ্ছে না দেখে বললেন আমি চৌকিদার। দেশকে রক্ষা করছি। বিদেশে গচ্ছিত এদেশের কালো টাকা সব ফিরিয়ে আনা হবে।

কিন্তু এই চৌকিদারের সময় দেশিয় সম্পত্তি লুট হয়েছে। নিরব মোদিরা বিদেশে পালিয়ে গেছেন।” এদিন প্রবল ঠান্ডাতেও শ্রমিক মেলায় ভালো সংখ্যায় মানুষ উপস্থিত ছিলেন। পরে ভাষনের পর শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক বলেন, ” শুধুমাত্র লকডাউনের সময় আমরা নয়টা চাবাগান খুলেছি। বন্ধ চা বাগান খোলার সময় যখন যেভাবে যা করা দরকার আমাদের দফতর তা করছে।” এদিন আলিপুরদুয়ার জেলা সদরে শ্রমিক মেলার উদ্বোধন করেন আলিপুরদুয়ারের বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তী। উপস্থিত ছিলেন আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের সভাধিপতি শীলা দাস সরকার। এখানেও শ্রমিকদের নানান পরিষেবা প্রদান করা হয়।