স্রষ্টার গলায় শুনুন ‘গেন্দা ফুল’ আসল গান, বাঙালির গান বিকৃতি করায় আইনি পথে লড়বেন শিল্পী?

ইতিমধ্যেই সারা দেশে আলোড়ন ফেলে দিয়েছে একটি বাংলা গানের রিমেক। এই গান কোনো আধুনিক নয় বা রক, পপের সাথেও দূর দূরান্তে এর কোনো যোগসূত্র নেই। এটি হল একটি বাংলার লোকগীতি। বীরভূম জেলার প্রত্যন্ত এলাকার একটি গান, যার নাম হল ‘গেন্দা ফুল’। সম্প্রতি ইউটিউবে প্রকাশিত হয়েছে বাদশার একটি গান এবং সেটিকে ঘিরেই সৃষ্টি হয়েছে বিভিন্ন মতবিভেদ।

জানি গিয়েছে, বাদশার প্রকাশ করা এই গানে ইতিমধ্যেই সাড়ে চার কোটির ও বেশি ভিউ পরে গিয়েছে তবে একেবারের জন্যও কোথাও এই গানের আসল স্রষ্টার নাম উল্লেখ নেই বা বাদশা একেবারের জন্যও এই গানের স্রষ্টার কাছ থেকে কোনও পারমিশন না নিয়েই এই গানের রিমেক করেছে বলে শোনা যাচ্ছে। এই গানের যিনি স্রষ্টা তাঁর নাম হল রতন কাহার।

রতন কাহার একেবারে শৈশব থেকেই দারিদ্র্যতার দর্শন করে বড় হয়েছেন। আজ বাঙালি তার সেন্টিমেন্ট বাঁচাতে, তাঁদের ঐতিহ্য বজায় রাখতে বিপ্লবের পথে হাঁটলেও এই গানের স্রষ্টার নাম এতদিন কেউ শোনেনি। তবে বাংলা লোককথা তে যেমন রয়েছে মাটির টান, তেমনি এই সুরে রয়েছে অতীতের সঙ্গে বর্তমানের এক সামাজিক মেল বন্ধন।

এই বন্ধনের কোনোরকম বাস্তবায়িক রূপের পটচিত্র না থাকলেও লোককথা এবং সুরের মধ্যে রয়েছে চরম সত্য যা আমাদের রন্ধ্রে রন্ধ্রে মনে করিয়ে দেয় আমাদের রীতি, পুরান কথা এবং অতীতের অভিনব বাংলা। এরকম এক সেন্টিমেন্টাল গানকে যখন রিমেক করা হচ্ছে তখন তার স্রষ্টার নাম থাকা আবশ্যক। অন্যদিকে এদিন খালি গলায় কোনোরকম হারমোনিয়াম এবং বাদ্যযন্ত্র ছাড়াই রতন কাহার গাইলেন ‘বড়লোক এর বিটিলো লম্বা লম্বা চুল’।