আপনি কি ইন্টারভিউ দিতে যাবেন? মেনে চলুন ফ্যেং শুই টিপস, পাবেন সাফল্য

ফ্যেং শুই, এই চিনা বাস্তুশাস্ত্রের বিভিন্ন নিয়ম মেনে চললে আমরা ভবিষ্যতে পেতে পারি অনেক সাফল্য।কোন ব্যক্তি যদি বহু চেষ্টা করেও চাকরি সূত্রে সাফল্য অর্জন করতে পারে তাহলে তার জন্য রইল চিনা বাস্তু শাস্ত্রের তরফ থেকে কিছু টিপস, যা মেনে চললে অদূর ভবিষ্যতে পাওয়া যেতে পারে সাফল্য।ফ্যেং শুই বিশেষজ্ঞদের মতে আপনি যদি সবুজ এবং নীল রঙের পোশাক পড়ে চাকরির ইন্টারভিউ দিতে চান তাহলে অচিরেই আপনার কাছে এসে ধরা দেবে সাফল্য। সবুজ এবং নীল রঙের পোশাক উজ্জ্বল থাকার কারণে এই পোশাকের রং অনেকেকেই মুগ্ধ করে।

পাশাপাশি কালো পোশাক বা সাদা পোশাক ব্যবহার নিষেধ করেছে চিনা বাস্তুশাস্ত্র।অতি উজ্জ্বল পোশাক যেমন লাল বা হলুদ রঙের পোশাক পড়লে আপনার সম্পর্কে ভুল ধারণা তৈরি হতে পারে চাকরিদাতাদের।ইন্টারভিউ তে প্রবেশ করার আগে খোলা বাতাসে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে নিন। বুক ভরে নিঃশ্বাস নিন এবং ছাড়ুন। ফ্যেং শুইয়ের মত অনুযায়ী বিশ্বাস,এর ফলে যতরকম নেতিবাচক চিন্তা আপনার মধ্যে থেকে বেরিয়ে যাবে।

ইন্টারভিউয়ের সময় কখনও এমন ভাবে বসবেন না যাতে দরজা একেবারে আপনার পিছনে থাকে।প্রবেশ এবং প্রস্থানের প্রতি যেন আপনার চোখের সামনে থাকে এমন ভাবেই আপনি বসবেন।এর কারণ হলো ইন্টারভিউ দেবার সময় কোন ব্যক্তি প্রবেশ করলে বা ঘর থেকে বেরিয়ে গেলে আপনার মনোযোগ সেদিক চলে যাবে।

আপনার বডি ল্যাঙ্গুয়েজই মনঃসংযোগ করুন।অনেকেই সবকিছু তৈরি করে এসেও নার্ভাস হয়ে পরে এমন ভাবে দেহভঙ্গি করতে শুরু করে দেয় যা অত্যন্ত দৃষ্টিকটু দেখায়। এক্ষেত্রে বসার সময় সামনের বসা ব্যক্তির বডি ল্যাঙ্গুয়েজ কে অনুসরণ করা যায় অস্বস্তি কাটাতে, এতে ইন্টারভিউয়ের সময় আপনার চারিপাশের পরিবেশের পজিটিভিটি তৈরি হয়।অযথা নড়াচড়া করা বা অযথা বেশি হাসা ভালো না বেশি কথা বলা ইন্টারভিউতে আপনার প্রতি নেতিবাচক মনোভাব তৈরি করতে পারে।