৩০-র কোটায় যেতেই বুড়িয়ে যাচ্ছেন? মানুন কিছু টিপস, বয়স কমবে অনেকটাই

বৃদ্ধ হতে কেউ আমরা চাই না। কিন্তু না চাইলেও কিন্তু বৃদ্ধ হতে হয় আমাদের।৩০ বছর পেরোতে না পেরোতেই আমাদের চোখে মুখে পড়ে যায় বয়সের ছাপ। খালি মনে হয় যেন এ বাবা আমি বোধহয় একা বুড়ো হয়ে গেলাম। এইসব চিন্তা করতে করতেই আমরা লিখে ফেলি নামিদামি কেমিকাল। তবে এতে করে কোন সুফল তো পাওয়া যায় না উল্টে হয়ে যায় কুফল। তার থেকে সহজ কিছু পদ্ধতি যদি মেনে চলি আমরা, তাহলে বোধহয় আরও কিছুদিন নিজেকে সতেজ এবং সজীব রাখতে পারব।

রোদ এড়িয়ে চলার চেষ্টা করবেন সবসময়।সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি আপনার ত্বকে ফেলে দেয় বয়সের ছাপ। তাই সব সময় রোদ এড়ানোর চেষ্টা করবেন এবং একান্তই যদি না সম্ভব হয় তাহলে সবসময় সানগ্লাস ব্যবহার করবেন এবং সঙ্গে রাখবেন ছাতা এবং টুপি। সানস্ক্রিন ব্যবহার না করে একেবারেই বেরোবেন না বাইরে। আপনার ত্বক যদি হয় শুষ্ক এবং রুক্ষ, তাহলে বাড়িতেই বানিয়ে নিতে পারেন মধু এবং দই এর প্যাক। এই প্যাক আপনার ত্বককে আদ্র রাখতে সাহায্য করে।এছাড়া সবসময় স্নানের পর মসরাইজার ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন।

ত্বকের জেল্লা ভেতর থেকে সুস্থ না থাকলে বারে না। তাই সবার আগে নিজেকে সুস্থ রাখা টা খুবই জরুরী। প্রতিদিন তিন থেকে চার লিটার জল খেতে হবে আপনাকে। বেশি পরিমাণ জল খেলে আপনার শরীরের ডিহাইড্রেশন হয় না। এছাড়া প্রত্যেকদিন ডায়েট মেনে ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার খেতে পারেন।

বিউটি স্লিপ অর্থাৎ পর্যাপ্ত ঘুম হওয়া টা খুব জরুরী শরীরের পক্ষে। এতে শরীরের ক্ষয়প্রাপ্ত কোষগুলিকে হরমোনের সঞ্চার হয় এবং পর্যাপ্ত ঘুম হলে আপনার চোখের নিচে কালি পড়ে না। প্রত্যেকদিন নিয়মিত যদি যোগ ব্যায়াম এবং যোগাসন করা যায়, তাহলেও আপনার শরীর সুস্থ এবং সতেজ থাকবে। এইসব কিছু পদ্ধতি যদি মেনে নিতে পারেন আপনি, তাহলে অদূর ভবিষ্যতে আপনার বয়স আরো কিছুদিন ধরে রাখতে পারবেন আপনি।