কাশ্মীর ইস্যুতে বড়সড় ধাক্কা চিনের, রাষ্ট্রপুঞ্জে একঘরে চিন

এবার ফের মুখ পোড়ালো চিন। কারণ এবার তারা ফের ভারতকে কাশ্মীর ইস্যুতে চাপে ফেলার চেষ্টা করে। কিন্তু পুরোটাই হয়ে যায় বুমেরাং। রাষ্ট্রপুঞ্জের রুদ্ধ দ্বার বৈঠকে ফের একঘরে চিন। রাষ্ট্রপুঞ্জের রুদ্ধ দ্বার বৈঠকে চিন চেয়েছিল যেভাবেই হোক কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ফের যদি ভারতকে চাপে ফেলা যায়, কিন্তু সেটা আর হল কোথায়? তারা এই কথার পরেই যেনো একঘর হয়ে গেল বলে জানা গেছে সংবাদ মাধ্যম সূত্রে।

জানা যায়, তারা এই কথা বলে ফের উস্কানিমূলক পরিস্হিতি তৈরী করতে চেয়েছিল। কিন্তু লাভের লাভ হয়নি। সেখানে যতগুলো সদস্যদেশ ছিল তারা সবাই দিল্লির পক্ষেই কথা বলেছে। তারা বলেছে, এই কাশ্মীর ইস্যু পুরোটাই ভারত ও পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক ব্যাপার, তাই তারা কোনোভাবেই চায় না, সেখানে নাক গলাতে। এই নিয়ে দ্বিতীয় বার মুখ পোড়ালো চিন।

কারণ এর আগে তারা আরেকবার এই কাশ্মীর ইস্যু নিয়েই মুখ পুড়িয়েছিল। তারা তখনও কাশ্মীর বিষয়ক মন্তব্য করে ভারতকে চাপে ফেলার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত লাভের লাভ হয়নি কিছুই। তখনও ফ্রান্স সহ সব সদস্য দেশ ভারতের পাশেই দাঁড়িয়ে ছিল। এই ঘটনার পরে ভারতের দূত আকবরউদ্দিন বলেন, আমাদের যারা ক্ষতি করতে চেয়েছিল, যারা আমাদের নামে মিথ্যা রটানোর চেষ্টা করছিল। তারা আমাদের বন্ধু দের কাছ থেকে যোগ্য জবাব পেয়েছে।

সমস্তরকম এক্সক্লুসিভ খবর পেতে লাইক করুন

তবে অবশ্য তারা এখানেই চুপ থাকেন না, জানা যায় পাকিস্তান নাকি এই কাশ্মীর ইস্যুকে ফের জাগিয়ে তুলতে চিনকে পাশে রেখে ভিয়েতনামকে ফের চিঠি পাঠায়, যাতে ফের এই কাশ্মীর ইস্যুকে আবার চাঙ্গা করে তোলা যায়। আসলে বিশেষজ্ঞরা আরও জানায়, এই কাশ্মীর দর্শনের জন্য সেখানে যায় বিদেশী রাষ্ট্রদূত ১৭ জন।

সেখানে প্রায় সব দেশের রাষ্ট্রদূত উপস্হিত থাকে। সেখানে গিয়ে তারা যে ভাবমূর্তি নিয়ে ফিরে আসে, তা ভারতের কাছে ইতিবাচক। কিন্তু এই ভাবনাকে ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা করছে চিন ও ইসলামাবাদ। তবে তাদের চেষ্টা যে বৃথা হয়েছে তা স্পষ্ট বোঝা যায় উপরের কথা গুলো থেকে।