CAA ইস্যুতে দিল্লির জামা মসজিদ নিয়ে একি বললেন বিচারক

ফাইল ছবি

দিল্লির জামা মসজিদ কি পাকিস্তানে? এবার এমন এক প্রশ্ন করে বসলেন দিল্লি আদালতের বিচারক। কারণ গত ডিসেম্বর মাসেই বিক্ষোভ দেখিয়ে গ্রেফতার হয়েছিল ভীম সেনা সুপ্রিমো চন্দ্র শেখর আজাদ। এবার তাদের দলের তরফ থেকে যখন আজকে জামিনের আবেদন জানানো হয়, তখন দিল্লির তিস আদালতের বিচারক বলেন, আপনারা কি ভাবছেন এই জামা মসজিদ পাকিস্তানের মধ্যে?

এর সাথে তিনি আরও বেশী করে পুলিশকে ভর্তস্যনা করে বলেন, এই দেশের সব নাগরিকের প্রতিবাদ করার অধিকার আছে। কিন্তু সেটা যেনো লাগামের মধ্যেই থাকে। এর সাথে তিন আরও বলেন, এই মসজিদ পাকিস্তানে নয়। আর সেটা পাকিস্তানে হলে সেখানে গিয়ে যেনো তারা প্রতিবাদ করেন। কারণ এক হিসেব থেকে দেখতে গেলে পাকিস্তান এক সময় ভারতেরই অংশই ছিল।

আসলে এই চন্দ্র শেখর আজাদ গত ২১ ডিসেম্বর জামা মসজিদের সামনে বিক্ষোভ করেন, আর তা একেবারে নিয়ম লঙ্ঘন করে। এর জন্য পরে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি সেদিন হাতে সংবিধানের রেপ্লিকা নিয়ে বিক্ষোভ করেন। আসলে মসজিদের সামনে বা ভিতরে কোনও ধরনের বিক্ষোভ করার অনুমতি নেই। কিন্তু তাও তিনি করেন। প্রথমে তাকে ধরা যায় নি ঠিকই কিন্তু পরে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে যখন আজ সরকারের আইনজীবী বলে যে চন্দ্র শেখর স্যোশাল মিডিয়ায় যা পোস্ট করেছে, যা লিখেছে তা সবই হল অসাংবিধানিক। কিন্তু বিচারক কামিনি লাউ সেই আইনিজীবীকে থামিয়ে বলেন। চন্দ্রশেখরের কোনও ধরনের পোস্টে আসাংবিধানিক কিছুই নেই। সে যখন ভারতের নাগরিক তার অধিকার আছে প্রতিবাদ করার। সে প্রতিবাদ করেছে। তার এই প্রতিবাদে কোনও ধরনের ভুল নেই।

সমস্তরকম এক্সক্লুসিভ খবর পেতে লাইক করুন