আমেরিকা ও ইরাকের যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যেই বড়সড় সিদ্ধান্ত জার্মানির

আমেরিকা ও ইরাকের যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যেই বড়সড় সিদ্ধান্ত জার্মানির

এমনিতেই বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন ড্রোন হামলায় ইরাকের সেনাবাহিনীর উচ্চ পদস্থ আধিকারিকের মৃত্যুর পর আমেরিকার সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক একেবারে তলানিতে নেমেছে আর তাই সন্ত্রাসবাদী সংগঠন ইসলামিক স্টেট এর বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে আমেরিকা সহ পশ্চিমের দেশগুলি যে সেনা পাঠিয়ে ছিল হামলার পর ইরানের ওই বিভিন্ন অঞ্চল থেকে মার্কিন সেনা সরানোর দাবি ওঠে।

আর তাই এই প্রথম ইরাক থেকে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত জানাল জার্মানি। তাই তো প্রথম দফায় বাগদাদে নিয়োজিত জার্মান সেনার এক চতুর ধ্বংস কুয়েত ও জর্ডনে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিল জার্মানি। সোমবার জার্মানির বিদেশ মন্ত্রক তরফে জানানো হয়েছে ইরাক সরকার ও সে দেশের পার্লামেন্ট চেয়েছিল বলেই জার্মানি সেনা পাঠিয়েছিল কিন্তু ইরাক সরকারের প্রয়োজন নেই বলেই সেখান থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নেওয়া হচ্ছে।

ইরাকে মোট আইএস গোষ্ঠী দমনের জন্য জার্মানি 415 জন সেনা পাঠিয়েছিল আর তার মধ্যে বাগদাদে 120 জন সেনা মোতায়েন করা হয়েছিল তবে প্রথম পর্যায়ে সেখান থেকে ত্রিশ জনকে সরিয়ে নিয়ে দেশে ফেরানো হচ্ছে।