ইরান আমেরিকার যুদ্ধ হলে ভারতের কি কি ক্ষতি হবে? জানলে অবাক হবেন

ইরান আমেরিকার যুদ্ধ হলে ভারতের কি কি ক্ষতি হবে

কেন ইরান আমেরিকার দ্বন্দ্ব ভারতের জন্য অশনিসংকেত? এই প্রশ্নের উত্তর হল, ভারত তৃতীয় বৃহত্তম তেল আমদানি কারক দেশ। আর সেই তেল ও জ্বালানি রপ্তানী করে ভারতকে ইরানই। ইরান থেকে ৮০% তেল ও ৪০% প্রাকৃতিক গ্যাস। কিন্তু ইরানের থেকে এইসব কেনার মাঝে বাধা হয়ে দাঁড়ায় আমেরিকা। এমনকি তারা ভারতকে আংশিক নিষেধাজ্ঞাও করে।

পরে ভারত বাধ্য হয়ে বেশীর ভাগ জ্বালানি আমেরিকা ও ভেনিজুয়েলা থেকে কেনা শুরু করে। এবার প্রশ্ন হচ্ছে যদি যুদ্ধ বাধে ভারত পরবে অসুবিধায়, কারণ আমেরিকা আগের থেকেই যুদ্ধের জন্য তেল মজুত করা শুরু করবে। গত শুক্রবার আমেরিকার হামলায় ইরানের সেনাপ্রধান সুলেইমানের মৃত্যু হয়েছে, আর তারফলেই তার প্রভাব পরেছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ গুলোর ওপরে। গত চারদিনে তেলের দাম হুহু করে বেড়েছে।

আর তারফলে সব থেকে চাপের মধ্যে পরেছে ভারত। ভারতের বাজারে তেলের দামও বেড়েছে হুহু করে। এতে এখন অসুবিধার মধ্যে সাধারণ মানুষ। তবে এই তেলের দামের ফলে এখন অনেক অসুবিধার সম্মুখীন হতে হবে সাধারণ মানুষের। কারণ এখন কাঁচামালের দামও বাড়তে শুরু করবে। তেলের দাম আগের থেকে তিন ডলার বেড়েছে ব্যারেল প্রতি। অপরিশোধিত তেলের দাম দাম বেড়ে হয়েছে এখন ৬৯.১৬ মার্কিন ডলার। এদিকে ডাব্লুটি আইয়ের দাম বেড়েছে ৬৩.৮৪%। এখন বিশেষজ্ঞরা বলছে যুদ্ধের পরিস্হিতি দেখা দিলে তেলের দাম হতে পারে আকাশছোঁয়া।

একবার সৌদি আরবের আরামকোয় ড্রোন হামলা করে বিদ্রোহীরা, তারফলে তেলের দামের অনেক ফারাক দেখা গেছে, এবার সুলেইমানির মৃত্যুর পরেও যে তেলের দামে পরিবর্তন হবে তা স্পষ্ট করেছে বিশেষজ্ঞরা। এদিকে তেলের সাথে ভারতীয় মুদ্রার দাম ডলারের তুলনায় অনেকটাই কমেছে আগে ডলারের হিসেবে টাকার দাম ছিল ৭১. ৩৮ টাকা, কিন্তু ইরানের সেই ঘটনার পরেই ডলারের হিসেবে টাকার দাম হয়েছে ৭১.৫৬ টাকা কিন্তু তার পরেই আরও নেমে হয়ে যায় ৭১.৬২ টাকা।