জমির ধার থেকে ক্ষত বিক্ষত এক প্রৌঢ়ার মৃতদেহ উদ্ধার করলো পুলিশ

মালদা, ০৬ জনুয়ারি : সোমবার সকালে জমির ধার থেকে ক্ষত বিক্ষত এক প্রৌঢ়ার মৃতদেহ উদ্ধার করলো পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে, ইংরেজবাজার থানার ফুলবাড়িয়া গ্রামে। প্রৌঢ়ের শরীরের বিভিন্ন অংশ খোবলানো দেখে পুলিশের ধারণা, গভীর রাতে বন্যজন্তু হয়তো ওই প্রৌঢ়ের উপর হামলা করে থাকতে পারে। তাতেই মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটতে পারে বলে অনুমান তাদের।যদিও মৃতের পরিবারের বক্তব্য, ওই বৃদ্ধকে দুষ্কৃতীরা খুন করেছে। পুরো বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায় পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত প্রৌঢ়ের নাম সুধীর চৌধুরী (৬০)। তাঁর বাড়ি ফুলবাড়িয়া গ্রামে। পেশায় কৃষক ওই ব্যক্তি রবিবার সন্ধ্যা থেকে নিখোঁজ ছিল এমনটাই জানতে পেরেছে পুলিশ। এরপর সোমবার সকালে বাড়ি থেকে দুই কিলোমিটার দূরে একটি জমির মধ্যেই ক্ষতবিক্ষত অবস্থায় ওই বৃদ্ধের দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। স্থানীয় গ্রামবাসীরা পুলিশকে খবর দেয়। পরে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। মৃতের এক আত্মীয় মিঠুন চৌধুরী জানিয়েছেন , ওই প্রৌঢ়কে দুষ্কৃতীরা খুন করেছে। তার গলা কেটে মাংস খুবলে নেওয়া হয়েছে ।

রবিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় এলাকার একটি হাটে গিয়েছিলেন সুধীর চৌধুরী। তারপরে তিনি আর বাড়ি ফেরেন নি। তাদের আশঙ্কা রাস্তাতেই হয়তো দুষ্কৃতীরা ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে তার গলা কেটে খুন করেছে। পুরো বিষয়টি নিয়ে পুলিশে অভিযোগ জানানো হয়েছে।এদিকে তদন্তকারী এক পুলিশ কর্তা জানিয়েছেন , যেভাবে ওই প্রৌঢ়ের গলার মাংস খোবলানো ছিল তাতে মনে হচ্ছে শিয়াল বা অন্য কোন বন্য জন্তুর হামলার শিকার হয়ে থাকতে পারে। হয়তো ওই বৃদ্ধ নেশাগ্রস্ত অবস্থায় জমির আলে পড়ে গিয়ে অচৈতন্য হয়ে পড়েছিল। অথবা আগে থেকে অসুস্থ হয়ে মারা যেতে পারে। এর পরে হয়তো বন্য জন্তুরা ওই প্রৌঢ়ের মাংস খুবলে খেয়েছে। যদিও এখনও কোন কিছুই পরিষ্কার নয়। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পরই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ বলা সম্ভব বলে জানিয়েছে পুলিশ। ইংরেজবাজার থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

সমস্তরকম এক্সক্লুসিভ খবর পেতে লাইক করুন