ফের পেঁয়াজের দাম আকাশছোঁয়া! দুদিনেই কেজি প্রতি দাম বাড়ল অনেকটাই

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির থেকে কিছুতেই ছুটকারা পাচ্ছে না বাংলাদেশ সরকার। সরকারের ব্যবস্থাপনায় কিছুদিন দাম নিয়ন্ত্রণে এলেও আবারো হুরহুর করে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। সেই পেঁয়াজের ঝাঁজে চোখের জল আসছে বাংলাদেশের সাধারণ জনগণের। খুব সমস্যায় পড়তে হচ্ছে মধ্যবিত্ত এবং দরিদ্রদের। ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা দেশ।বিপাকে পড়েছেন শেখ হাসিনা সরকার।

পিঁয়াজের ডিমান্ড ফুলফিল করতে ভারতের থেকেও পিঁয়াজ রপ্তানি করতে হয়েছে বাংলাদেশে। কিন্তু সেপ্টেম্বর মাস থেকে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি করতে নাকোচ করে দেওয়ায় মূহুর্তেই দাম বেড়ে গেল বাংলাদেশে। সাধারণত ৩০-৪০ টাকা কেজি দরে পাওয়া পেঁয়াজের দাম বাড়তে বাড়তে ২৫০ টাকায় পৌঁছায়।

পরিস্থিতি কন্ট্রোল করতে, তুরস্ক, চিন এমনকি মিশর থেকে পেঁয়াজ আমদানি করার ব্যবস্থা করে বাংলাদেশ সরকার। এমনকি লোকাল পেঁয়াজের উৎপাদন বাড়িয়ে মার্কেটে নিয়ে আসা হয়। এবং এই দুটি ওপর ভিত্তি করে দাম কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এসেছিল। বিকল্প ব্যবস্থা খুঁজতে খুঁজতেই গত শুক্রবার থেকে ফের হুঁ হুঁ করে বাড়তে লাগলো পেঁয়াজের মূল্য।

ঢাকায় বহু বাজারে নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে একশোরও বেশি টাকা কেজিতে । দাম ওঠানামা করছিল ১১০-১২০ এর মধ্যে। ইতিমধ্যে গত শুক্রবার দাম বেড়ে হয় ১৮০ টাকা কেজি। তাতেই চটে যান আমজনতা। এমন দুর্মূল্যের বাজারে পেঁয়াজের দাম এতো বেড়ে যাওয়াতে দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে তাদের।

ব্যবসায়ীরা মনে করছেন এই শীতের আবহাওয়া অনুকুল নয়‌। আচমকা বৃষ্টিপাত আরম্ভ হওয়ার ফলেই পেঁয়াজের উৎপাদন কমে গেছে। বাজারে পেঁয়াজের দিনে দিনে ক্রমশ বেড়েই চলেছে। আকাশছোঁয়া হচ্ছে পেঁয়াজের মূল্য।

অন্য দেশ থেকে আমদানি করতে গেলে খরচ বেশি হয়ে যাচ্ছে। বিদেশ থেকে আমদানি করা পেঁয়াজের দামও বাড়ছে। জানা গিয়েছে, মিশর থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ গত সপ্তাহে কেজি প্রতি ৫০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। এই সপ্তাহে দাম বেড়ে তা বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৬০ টাকা থেকে ৭০ টাকায়।

সমস্তরকম এক্সক্লুসিভ খবর পেতে লাইক করুন