তৃণমূলের পথ অনুসরণ বড়সড় পদক্ষেপ বিজেপির

সিএএ সমর্থনে সাধারণ জনগনদের নিজেদের পাশে টানার জন্য স্থানীয় ক্লাবগুলোকে টার্গেট করেছে বিজেপি। সিএএ এক্ট চালু হওয়ার পর থেকেই ক্ষোভে উত্তাল সমগ্র দেশবাসী। জনসাধারণকে বোঝাতে হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিষয়টি আসলে কী? নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে জনমত গড়ে তোলা আবশ্যক।

তাই বিজেপি শীর্ষনেতাদের প্রত্যেক এলাকায় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন সম্পর্কে সঠিক তথ্য প্রচারের দায়িত্বভার দেওয়া হচ্ছে। বিভিন্ন স্ট্র্যাটেজি অবলম্বন করা হচ্ছে। বলাবাহুল্য তৃণমূলের কৌশল অবলম্বন করেই এগোচ্ছে বিজেপি। একটু বিস্তারিত আলোচনা করা যাক। সিএএ নিয়ে জনমত গড়ে তোলার উদ্দেশ্যে বিজেপি পাশে টানতে চেয়েছেন স্থানীয় কিছু ক্লাব ও এলাকার কিছু বুদ্ধিজীবী মানুষদের।

বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার কথাতে খুব সহজেই বোধগম্য হচ্ছে তা। অমিত শাহ এবং দলের কার্যনির্বাহী সভাপতি জে পি নাড্ডা প্রত্যেকটা রাজ্য ধরে ধরে সিএএ-র বিষয় প্রচারের দায়িত্বভার দিয়েছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের। চলুন জেনে নেওয়া যাক, কারা কারা রাজ্যে সেই প্রচারের দায়িত্বভার পেলেন!

সমস্তরকম এক্সক্লুসিভ খবর পেতে লাইক করুন

-পশ্চিমবঙ্গ, ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা এবং উত্তরপূর্ব অংশে প্রচারের দায়িত্ব পেয়েছেন হেমন্ত বিশ্বশর্মা এবং রাহুল সিনহা ।

বিহার ও উত্তরপ্রদেশের দায়িত্বে রয়েছেন অনিল জৈন।

ছত্তিশগড়ের, মধ্যপ্রদেশ, দিল্লিতে সিএএ-প্রচারের দায়িত্বে রয়েছেন অবিনাশ রাইকে।

মহারাষ্ট্র, গুজরাট, রাজস্থানে প্রচারের প্রধান দায়িত্বে রয়েছেন সরোজ পাণ্ডে।

হিমাচল, জম্মু ও কাশ্মীর, পঞ্জাব ও হরিয়ানায় প্রচারের দায়িত্ব নিয়েছেন সুরেশ ভাট।

অন্ধ্র, কর্নাটক, তেলেঙ্গানা, কেরালা ও পুদুচেরিতে প্রচারের প্রধান দায়িত্বে রয়েছেন রবীন্দ্র রাজু ।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা দেশ। হাতে হাত মিলিয়েছেন‌ বিরোধী পক্ষেরা।
মোদী এবং বিজেপি সরকারকে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাস হবার পর থেকে প্রবল বিরোধিতার এবং রোষের সম্মুখীন হতে হয়েছে।

সাধারণ জনগণের সমর্থন পেতে‌ এবার পাল্টা প্রচারে নেমেছে বিজেপি সরকারও। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের পক্ষে জনগণকে পাশে পেতে একেবারে তৈরি হয়ে ময়দানে নেমেছে গেরুয়া শিবিরও। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজেই নিজের টুইটারেহ্যাশট্যাগ ক্যাম্পেন শুরু করছেন। পাশাপাশি সিএএ-নিয়ে  জনগণের কাছে পৌঁছে যাবার জন্য এবার এলাকা বেছে বেছে জোর কদমে প্রচার চলছে। বেছে নেওয়া হচ্ছে এই কৌশল।