গুগলের চেয়েও জনপ্রিয় হচ্ছে এই সার্চ-ইঞ্জিন

গুগলের চেয়েও জনপ্রিয় হচ্ছে এই সার্চ-ইঞ্জিন

‘বিনা অনুমতিতে তথ্য হাতিয়ে নেওয়া’ এই অভিযোগে অভিযুক্ত গুগল সহ অন্যান্য জনপ্রিয় সার্চ-ইঞ্জিন গুলি। বিনা অনুমতিতে ব্যবহারকারীর কাছ থেকে তার যাবতীয় তথ্যাবলী তথা ফোন নম্বর, ইমেল আইডি, ছবি এবং অন্যান্য গোপনীয় ডেটা সংগ্রহ এবং তা বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের কাছে পৌঁছে দিয়ে নিজেদের বিশ্বাসযোগ্যতা হারাচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন গুলি।

এক্ষেত্রে ডাক ডাক গো তার গোপনীয়তার নীতি কট্টরভাবে পালন করায় স্বাভাবিকভাবেই তার বিশ্বাসযোগ্যতা দিন দিন বাড়ছে বলে এক বিশেষ সমীক্ষায় উঠে এসেছে। সম্প্রতি টুইট্যারের সিইও জ্যাক ডরসের বিবৃতি “বিশ্বাসযোগ্যতার কথা মাথায় রেখে আমি অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন এর বদলে ডাক-ডাক-গো ব্যবহার করছি” অনেক ব্যবহারকারীদের বিকল্প হিসেবে ডাক ডাক গো কেই বেছে নিতে ভাবাচ্ছে।

২০০৮ সালে এই সার্চ ইঞ্জিনের উদ্ভাবন করা হয়েছিল। কিন্তু গুগল সহ অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনগুলির তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার বিষয়টি সামনে আসার পর থেকে এই সার্চ ইঞ্জিনটি ক্রমশ গুরুত্ব পেতে শুরু করেছে। কিন্তু তথ্য হাতিয়ে নেওয়া বিষয়টি সামনে আসার পর থেকে এই সার্চ ইঞ্জিনটি ক্রমশ গুরুত্ব পেতে শুরু করেছে।

যদিও গুগল এর নিরিখে এর শেয়ার খুবই নগণ্য, গুগলের শেয়ার যেখানে ৮১.৫ শতাংশ সেখানে ডাক-ডাক-গো এর শেয়ার মাত্র ০.২৮ শতাংশ, কিন্তু বিশ্বাসযোগ্যতার সম্পদ দিয়ে অনায়াসেই গুগলকে চ্যালেঞ্জ করার ক্ষমতা রাখে ডাক ডাক গো।

সমস্তরকম এক্সক্লুসিভ খবর পেতে লাইক করুন