বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে! উত্তেজনা শীতলখুচিতে

বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

কোচবিহার- প্রকাশ্যে দিনের বেলা একের পর এক বোমা ফাটিয়ে বিজেপির দলীয় কার্যালয়য়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। আজ শীতলখুচি ব্লকের ডাকঘরা বাজার এলাকায় ওই ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনার আতঙ্কে ডাকঘরা বাজারের দোকানপাট, ব্যাংক, গ্রাম পঞ্চায়েত দফতর সব বন্ধ হয়ে যায়।

খবর পেয়ে মাথাভাঙা থানার আইসি প্রদীপ সরকার ও শীতলখুচি থানার ওসি কাজল সরকারের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে ছুটে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। তবে এখনও এলাকায় চাপা উত্তেজনা রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।
বিজেপি নেতা অভিজিৎ বর্মন অভিযোগ করে জানান, বেশ কিছুদিন থেকে শীতলকুচির বিভিন্ন এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেসের হার্মাদ বাহিনী সন্ত্রাস করে বেড়াচ্ছে। তাদের দলীয় কার্যালয়ের উপরে আক্রমণ করছে। এদিনও ডাকঘরা বাজারে বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে হামলা করে তৃণমূলের হার্মাদরা। পুলিশের সামনেই ওই ঘটনা ঘটে বলে অভিজিৎ বাবুর অভিযোগ।

তিনি বলেন, “এদিন বেলা ১২ টা নাগাদ সাধারণ মানুষ বিভিন্ন কাজে ব্যাংক, গ্রাম পঞ্চায়েত দফতর ও দোকানপাট নিয়ে যখন ব্যস্ত। তখন অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে তৃণমূলের হার্মাদরা মিছিল করে এসে ডাকঘরা বাজারের আমাদের কার্যালয়য়ে হামলা চালায়। ওই সময় কম করেও ১০/ ১২টি বোমা ফাটানো হয়। দলীয় কার্যালয়ের টেবিল চেয়ার ও একটি মোটর সাইকেল ভাঙচুর করা হয়। পুলিশকে সাথে নিয়ে তৃণমূলের এই সন্ত্রাস বন্ধ না হলে বিজেপি প্রতিরোধ গড়তে ময়দানে নামতে বাধ্য হবে।”

যদিও তৃণমূলের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন দলের শ্রমিক সংগঠনের নেতা আলিজার রহমান। তিনি বলেন, “দিন কয়েক আগে বিজেপির মন্ডল সভাপতি ঘোষণা হয়েছে। তা নিয়ে ওদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরম আকার নিয়েছে। আজকের ঘটনা সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল। উল্টে বিজেপি উন্নয়নকে স্তব্ধ করতেই এলাকায় অশান্তি তৈরি করছে। জনগণ তার জবাব দিবে।”