অজানা কারণেই এইডসে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা, এশিয়াতে পাকরাষ্ট্রই প্রথম

অজানা কোনো এক কারণে শত শত পাকিস্তানের শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে এইডস।দেশ টি ছোট হলেও জন সংখ্যা নেহাত কম হয়। বিগত কিছু মাস থেকে পাকিস্তানের প্রায় ৯শত শিশু আক্রান্ত হয়েছে।

এ বছরের এপ্রিলে স্থানীয় এক চিকিৎসকের কাছে আশা কিছু শিশুর উপসর্গ দেখে এইচআইভি পরীক্ষা করতে বলেন। আর তাতেই দেখা যায় শত শত শিশু আক্রান্ত এই রোগে। পাকিস্তানের যে শিশু গুলি আক্রান্ত তাদের বয়স প্রায় সবার ই ১২ বছরের কম এবং তাদের পরিবারের কোনো সদস্য কি রোগে আক্রান্ত নয়।

রাতোদেরোতে এই রোগ সব থেকে বেশি ছড়িয়েছে। সেখানকার এক চিকিৎসক তার সুনাম ছিল। তিনি অনেক কম খরোচে চিকিৎসা করতেন। কিন্তু তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয় তিনি এইচআইভি ভাইরাস ছড়িয়ে ছেন। তাকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি বলেছেন দশ বছর থেকে চিকিৎসা করছেন আর আগে কখনই এই রকম ঘটনা ঘটেনি। তার বিরুদ্ধে
মিথ্যে অভিযোগ আনা হয়েছে। পরবর্তী তে জানা যায় তিনিও আক্রান্ত।

স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘটনায় সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত। জাতিসংঘের একটি প্রতিবেদন এ জানা গেছে ২০১৯ এ ১১ টি দেশের মধ্যে পাকিস্তান আছে। আর যারা আক্রান্ত তাদের বেশির ভাগই জানে না তারা আক্রান্ত।

এশিয়ায় ফিলিপিন্সের পরেই পাকিস্তানের স্থান। দ্রুততম এই রোগ ছড়াচ্ছে। এই ঘটনায় পাকিস্তানের স্বাস্থমন্ত্রী নড়েচড়ে বসেছেন। তারা বলেছেন পাকিস্তান এর চিকিৎসা ব্যবস্থা খুব একটা ভালো নয়। খুব তাড়াতাড়ি এই অবস্থার উন্নতি করতে হবে। প্রায় ৬ লক্ষ হাতুড়ে চিকিৎসক আছে। তারা ঠিক করে চিকিৎসা করতে পারেন না।যাতে সংক্রমণের চান্স বেশি, সরকারের সাথে সাথে বেসরকারি সংস্থা গুলিও চেষ্টা চালাচ্ছে।

চিকিৎসা ব্যাবস্থার সাথে সাথে অবৈধ সম্পর্ক, সমকামী তা, বহু বিবাহ। এই সবের দিকে নজর দিতে হবে। এটি এমন একটি রোগ যা পুরো সমাজ ব্যবস্থাকে নষ্ট করে পারে।